ঢাকা, মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৪, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

রাষ্ট্রপতি : সরকারি টাকা ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে : রাষ্ট্রপতি * রাষ্ট্রপতি হামিদ দ্বিতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রপ্রধানের শপথ নেবেন কাল   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : পরমাণু পরীক্ষা বন্ধে উত্তর কোরীয় নেতার প্রতিশ্রতির প্রশংসা দক্ষিণ কোরীয় নেতার * গাজায় ইসরাইলি সৈন্যের গুলিতে আহত ফিলিস্তিনীর মৃত্যু * লিবিয়ার বেনগাজিতে সংঘর্ষে ২ জন নিহত * ভারতের মধ্যাঞ্চলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫   |    জাতীয় সংবাদ : তারেক য্ক্তুরাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তার পাসপোর্ট হস্তান্তর করেছেন : শাহরিয়ার * শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় মোদির ভূয়সীঁ প্রশংসা * কপিরাইট আইন সম্পর্কে সচেতনতা জরুরি : সংস্কৃতি মন্ত্রী   |   খেলাধুলার সংবাদ : পিএফএ বর্ষসেরা খেলোয়াড় মনোনীত হলেন সালাহ * সাউদাম্পটনকে হারিয়ে এফএ কাপের ফাইনালে চেলসি *নেইমারের পিএসজি ত্যাগ করা উচিত : রিভালদো   |    জাতীয় সংবাদ : রাজধানীর পল্টনে দুই বাসের সংঘর্ষে নিহত ১ *১৯ ক্যাটাগরির কর্মী প্রেরণ করা হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে * বিএসসি বহরে নতুন জাহাজ বাংলার জয়যাত্রা আসছে জুলাইতে * পাহাড়ের ঢালে বসবাসকারী সকলকে অবিলম্বে সরিয়ে নিতে হবে : মায়া চৌধুরী   |   আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও বিজলী চমকানোসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে   |   প্রধানমন্ত্রী : দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী   |    বিভাগীয় সংবাদ : রাঙ্গামাটিতে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় সাইনবোর্ড স্থাপন * বিভিন্ন স্থানে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ পালন   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : লিবিয়ায় ১১ শরণার্থীর লাশ উদ্ধার * প্যারাগুয়ের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রক্ষণশীলদের জয় *সীমান্ত সংক্রান্ত বার্তা প্রচার বন্ধ দ.কোরিয়ার * প্রিন্স উইলিয়ামের স্ত্রী কেট হাসপাতালে * উত্তর কোরিয়ায় বাস দুর্ঘটনা : কমপক্ষে ৩২ চীনা নাগরিক নিহত   |   

চূড়ান্ত হামলার জন্য মিত্র বাহিনীর প্রস্তুতি

ঢাকা, ১ ডিসেম্বর, ২০১৪ (বাসস) : ১৯৭১ সালের বিজয়ের মাসের দ্বিতীয় দিন ২ ডিসেম্বর যশোর জেলার ঝিকরগাছায় সীমান্ত এলাকায় ব্যাপক সংঘর্ষ হয়।
পাকিস্তানি দখলদার বাহিনীর উপর মিত্র বাহিনী প্রচন্ড হামলা চালালে পাক সেনারা আত্মরক্ষামূলক অবস্থান নেয়।
বিকেলে পাকিস্তান বিমান বাহিনী ভারতে মিত্র বাহিনীর অবস্থানের উপর বোমা হামলা চালানোর ঠিক পূর্ব মুহূর্তে ভারতের বিমান বাহিনী পাকিস্তানী সেনা অবস্থানে ব্যাপক বোমা হামলা চালায়। চূড়ান্ত হামলা চালানোর আগে মিত্র বাহিনীর এই হামলা যে কোন পেশাদার আর্মীর প্রমাণ করেছে। তারা পাকিস্তানী সেনাদের বড় ধরনের হামলার প্রস্তুতির জবাবে এই হামলা চালায়।
পাকিস্তানী সীমান্ত থেকে ৩০ মাইল দূরে কলকাতায় তৎকালীন থিয়েটার রোর্ড বর্তমান সেক্সপিয়ার স্মরণীতে বাংলাদেশের প্রবাসী বিপ্লবী সরকারের সদর দফতরের লোহার গেটটি ছিল বন্ধ।
ভারত সরকারের ব্লাক আউট ঘোষণা এবং দম দম বিমান বন্দর বর্তমান নেতাজী সুবাস চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ভারতের বিমান বাহিনীর বিমান রক্ষায় এক সপ্তাহের জন্য অভ্যন্তরীণ রুটের সকল ফ্লাইট এক সপ্তাহের জন্য বাতিল ঘোষণা করা হয়।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দ্রিরা গান্ধী এই দিনে কলকাতায় আসেন এবং ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে শক্তিশালী অর্ধলক্ষ্য সেনা সদস্য সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। তিনি বিকেল ৫টায় বক্তব্য শুরু করেন এবং সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, তিনি যুদ্ধ চান না। তবে কেউ যুদ্ধ চাপিয়ে দিলে তিনি বিরত থাকতে পারেন না।
মিসেস গান্ধী পাকিস্তানী বাহিনীর বিমান হামলা সম্পর্কে জানতেন না। ৫টা ৩০ মিনিটে এই হামলা শুরু হয় এবং তাঁর বক্তব্যের শেষে পর্যন্ত চলে। বক্তব্য শেষে তিনি নয়াদিল্লী চলে যান।
২ ডিসেম্বরের এ পরিস্থিতিতে পরবর্তীতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক সহকারি ও পরবর্তীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রী হেনরী কিসিঞ্জার পাকিস্তানের সমর্থক যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের কাছে লেখা গোপন প্রতিবেদনে আইরনিকেলি হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন।
কিসিঞ্জার বলেন, দেশের অধিকাংশ এলাকা মুক্তি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে এবং অনেক জেলা শহরের পতন ঘটেছে। তিনি বলেন, ঢাকার ১৭ মাইলের মধ্যে বাংলাদেশের পতাকা উড়তে দেখা গেছে। তিনি বলেন, ২০ লাখ মার্কিন ডলারের সামরিক সহায়তা স্থগিত করায় ভারতীয়দের মধ্যে কোন প্রভাব ফেলেনি। ভারতের রাষ্ট্রদূত কাউল বলেছেন, এ পথ থেকে ভারতীয়দেরকে ফেরানো যাবে না।
কিসিঞ্জার আরো বলেন, সোভিয়েত ইউনিয়নের কাছ থেকে ভারত বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ পেয়েছে। তিনি বলেন, কূটনৈতিক ফ্রন্টে স্থায়ী সদস্য দেশগুলো কোন সাড়া না দেয়া জাতিসংঘে জাপান এবং বেলজিয়ামের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব কার্যকর হয়নি। ভারত আপত্তি জানালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেটো প্রয়োগ করতে প্রস্তুত ছিল।
তিনি বলেন, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের আগ্রাসন ও সামরিক উস্কানি সম্পর্কে গত দশ দিনে মিডিয়ার খবরে হংকং-এ চীনা ওয়াচভিত্তিক খবরে প্রাণপন চেষ্টা হিসেবে উল্লেখ করা হয়। তবে তিনি মনে করেন পূর্ব পাকিস্তানে সংকট নিরসনে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে শান্তিপূর্ণ সমঝোতার জন্য চীনের আহ্বানে খুব সামান্যই সাড়া মিলেছে।
অপরদিকে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট জেনারেল আগা মোহম্মদ ইয়াহিয়া খান ১৯৫৯ সালে পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে স্বাক্ষরীত দ্বিপক্ষীয় সামরিক চুক্তির আলোকে সামরিক সহায়তা চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে টেলিগ্রাম পাঠান। দিনের শেষে সকলের কাছে পরিস্কার হয়ে যায়, যে কোন সময়ে উপ-মহাদেশে যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়বে।

সম্পর্কিত সংবাদ