ঢাকা, রবিবার, জানুয়ারী ২১, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংবাদ : পাঠদানের পাশাপাশি সরকারের সাফল্যের কথাও শিক্ষার্থীদের কাছে তুলে ধরার আহবান রেলপথ মন্ত্রীর * পদ্মাসেতু এখন দৃশ্যমান বাস্তবতা : ওবায়দুল কাদের * সুযোগ তৈরি করে দিলে তরুণ প্রজন্ম সক্ষমতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে : স্পিকার   |   রাষ্ট্রপতি : রফতানি প্রতিযোগিতা সক্ষমতা বাড়াতে উৎপাদনের গুণগতমান নিশ্চিত করুন : রাষ্ট্রপতি   |    অর্থনীতি : প্রত্যেক জেলায় ত্রাণ গুদাম নির্মাণ করা হবে   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : ষোড়শ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের পর্দা নামলো * আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হলো কোরীয় ছবি জার্নি ইনটু দ্যা ড্রিম    |   শিক্ষা : উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিশ্বমানে উন্নীত করতে সরকার কাজ করছে : নাহিদ   |    বিভাগীয় সংবাদ : মেহেরপুরে ৯ রাতব্যাপী যাত্রা উৎসব শুরু * নড়াইলে ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ হচ্ছে পানি শোধনাগার * শতভাগ বিদ্যুতায়নের পথে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর ৬টি উপজেলা   |    জাতীয় সংবাদ : শুদ্ধভাবে বাংলা ভাষার চর্চা করুন : ইনু * রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় আরো সহায়তা প্রয়োজন : বিশ্বব্যাংক * বিএনপির কোন নীতি আদর্শ নেই : তোফায়েল *বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের আখেরী মোনাজাত আগামীকাল    |   খেলাধুলার সংবাদ : মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আগামীকাল মুখোমুখি জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলংকা *যুব বিশ্বকাপ : কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ভারত *বিএসপিএ নির্বাচনে মামুন সভাপতি-আনন্দ সাধারণ সম্পাদক   |   আবহাওয়া : নড়াইলে ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ হচ্ছে পানি শোধনাগার   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : অচলাবস্থার মুখে যুক্তরাষ্ট্র সরকার * ফিলিপাইনে গাড়ি দুর্ঘটনায় নিহত ৭ * তুরস্কে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ১১, আহত ৪৬ *নাইজারে বোকো হারামের হামলায় ৭ সৈন্য নিহত * সিউলে মোটেলে আগুন ধরিয়ে দেয়ায় ৫ জনের মৃত্যু   |   

চূড়ান্ত হামলার জন্য মিত্র বাহিনীর প্রস্তুতি

ঢাকা, ১ ডিসেম্বর, ২০১৪ (বাসস) : ১৯৭১ সালের বিজয়ের মাসের দ্বিতীয় দিন ২ ডিসেম্বর যশোর জেলার ঝিকরগাছায় সীমান্ত এলাকায় ব্যাপক সংঘর্ষ হয়।
পাকিস্তানি দখলদার বাহিনীর উপর মিত্র বাহিনী প্রচন্ড হামলা চালালে পাক সেনারা আত্মরক্ষামূলক অবস্থান নেয়।
বিকেলে পাকিস্তান বিমান বাহিনী ভারতে মিত্র বাহিনীর অবস্থানের উপর বোমা হামলা চালানোর ঠিক পূর্ব মুহূর্তে ভারতের বিমান বাহিনী পাকিস্তানী সেনা অবস্থানে ব্যাপক বোমা হামলা চালায়। চূড়ান্ত হামলা চালানোর আগে মিত্র বাহিনীর এই হামলা যে কোন পেশাদার আর্মীর প্রমাণ করেছে। তারা পাকিস্তানী সেনাদের বড় ধরনের হামলার প্রস্তুতির জবাবে এই হামলা চালায়।
পাকিস্তানী সীমান্ত থেকে ৩০ মাইল দূরে কলকাতায় তৎকালীন থিয়েটার রোর্ড বর্তমান সেক্সপিয়ার স্মরণীতে বাংলাদেশের প্রবাসী বিপ্লবী সরকারের সদর দফতরের লোহার গেটটি ছিল বন্ধ।
ভারত সরকারের ব্লাক আউট ঘোষণা এবং দম দম বিমান বন্দর বর্তমান নেতাজী সুবাস চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ভারতের বিমান বাহিনীর বিমান রক্ষায় এক সপ্তাহের জন্য অভ্যন্তরীণ রুটের সকল ফ্লাইট এক সপ্তাহের জন্য বাতিল ঘোষণা করা হয়।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দ্রিরা গান্ধী এই দিনে কলকাতায় আসেন এবং ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে শক্তিশালী অর্ধলক্ষ্য সেনা সদস্য সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। তিনি বিকেল ৫টায় বক্তব্য শুরু করেন এবং সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, তিনি যুদ্ধ চান না। তবে কেউ যুদ্ধ চাপিয়ে দিলে তিনি বিরত থাকতে পারেন না।
মিসেস গান্ধী পাকিস্তানী বাহিনীর বিমান হামলা সম্পর্কে জানতেন না। ৫টা ৩০ মিনিটে এই হামলা শুরু হয় এবং তাঁর বক্তব্যের শেষে পর্যন্ত চলে। বক্তব্য শেষে তিনি নয়াদিল্লী চলে যান।
২ ডিসেম্বরের এ পরিস্থিতিতে পরবর্তীতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক সহকারি ও পরবর্তীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রী হেনরী কিসিঞ্জার পাকিস্তানের সমর্থক যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের কাছে লেখা গোপন প্রতিবেদনে আইরনিকেলি হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন।
কিসিঞ্জার বলেন, দেশের অধিকাংশ এলাকা মুক্তি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে এবং অনেক জেলা শহরের পতন ঘটেছে। তিনি বলেন, ঢাকার ১৭ মাইলের মধ্যে বাংলাদেশের পতাকা উড়তে দেখা গেছে। তিনি বলেন, ২০ লাখ মার্কিন ডলারের সামরিক সহায়তা স্থগিত করায় ভারতীয়দের মধ্যে কোন প্রভাব ফেলেনি। ভারতের রাষ্ট্রদূত কাউল বলেছেন, এ পথ থেকে ভারতীয়দেরকে ফেরানো যাবে না।
কিসিঞ্জার আরো বলেন, সোভিয়েত ইউনিয়নের কাছ থেকে ভারত বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ পেয়েছে। তিনি বলেন, কূটনৈতিক ফ্রন্টে স্থায়ী সদস্য দেশগুলো কোন সাড়া না দেয়া জাতিসংঘে জাপান এবং বেলজিয়ামের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব কার্যকর হয়নি। ভারত আপত্তি জানালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেটো প্রয়োগ করতে প্রস্তুত ছিল।
তিনি বলেন, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের আগ্রাসন ও সামরিক উস্কানি সম্পর্কে গত দশ দিনে মিডিয়ার খবরে হংকং-এ চীনা ওয়াচভিত্তিক খবরে প্রাণপন চেষ্টা হিসেবে উল্লেখ করা হয়। তবে তিনি মনে করেন পূর্ব পাকিস্তানে সংকট নিরসনে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে শান্তিপূর্ণ সমঝোতার জন্য চীনের আহ্বানে খুব সামান্যই সাড়া মিলেছে।
অপরদিকে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট জেনারেল আগা মোহম্মদ ইয়াহিয়া খান ১৯৫৯ সালে পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে স্বাক্ষরীত দ্বিপক্ষীয় সামরিক চুক্তির আলোকে সামরিক সহায়তা চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে টেলিগ্রাম পাঠান। দিনের শেষে সকলের কাছে পরিস্কার হয়ে যায়, যে কোন সময়ে উপ-মহাদেশে যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়বে।

সম্পর্কিত সংবাদ