৬টি স্থল বন্দর স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাছাই করা হচ্ছে : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

সংসদ ভবন, ৩ মার্চ, ২০১৯ (বাসস) : নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানিয়েছেন, দেশে আরও ৬টি স্থালবন্দর স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাই করা হচ্ছে।
তিনি আজ সংসদে সরকারি দলের সদস্য মো. শহীদুজ্জামান সরকারের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এই তথ্য জানান।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এগুলো হচ্ছে- কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার প্রাগপুর, কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী, সিলেট জেলাধীন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ, বান্দরবান জেলাধীন নাইক্ষংছড়ি উপজেলার ধুমধুম, মৌলভীবাজার জেলাধীন কুলাউড়া উপজেলার চাতলাপুর, সুনামগঞ্জ জেলাধীন তাহিরপুর উপজেলার বড়ছড়া, সিলেট জেলাধীন জকিগঞ্জ শুল্ক স্টেশনকে স্থলবন্দর ঘোষণার বিষয়ে সম্ভাব্যতা যাচাই করা হচ্ছে।
তিনি জানান, দেশে বিদ্যমান স্থলবন্দরগুলো হলো- বেনাপোল (যশোর), বুড়িমারী স্থলবন্দর (লালমনির হাট), আখাউড়া স্থলবন্দর (ব্রাক্ষণবাড়িয়া), সোনামসজিদ স্থল বন্দর (চাাঁপাই নবাবগঞ্জ), হিলি স্থলবন্দর (দিনাজপুর), ভোমরা স্থলবন্দর(সাতক্ষীরা), বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর (পঞ্চগড়), বিরল স্থলবন্দর (দিনাজপুর), টেকনাফ স্থলবন্দর ( কক্সবাজার), তামাবিল স্থলবন্দর (সিলেট), গোবড়াকুড়া-কুড়ইতলি স্থলবন্দর (ময়মনসিংহ), বিবির বাজার স্থল বন্দর (কুমিল্লা), দর্শনা স্থল বন্দর (চুয়াডাঙ্গা), বিলোনিয়া স্থল বন্দর ফেনী), নাকুগাঁও স্থলবন্দর (শেরপুর), রামগড় স্থলবন্দর (খাগড়াছড়ি), সোনাহাট স্থল বন্দর (কুড়িগ্রাম), তেগামুখ স্থল বন্দর (রাঙ্গামাটি), চিলাহাটি স্থল বন্দর (নীলফামারী), দৌলতগঞ্জ স্থলবন্দর (চুয়াডাঙ্গা), ধানুয়া কামালপুর স্থলবন্দর (জামালপুর), শেওলা স্থলবন্দর (সিলেট) ও বাল্লা স্থল বন্দর (হবিগঞ্জ)।