ভ্যাট ফাঁকি রোধে ইএফডির ব্যবহার নিশ্চিত করতে চাই এনবিআর

338
image_printPrint

ঢাকা, ৪ জুন, ২০১৮ (বাসস) : মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট আহরণে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে নিবন্ধিত ভ্যাটদাতা পর্যায়ে ইলেকট্রনিক ক্যাশ রেজিস্ট্রার (ইসিআর) মেশিন ব্যবহারের পরিবর্তে একটি সফটওয়্যার ডেভলপ করে সেটিতে ভ্যাটদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সংযুক্ত করে রাজস্ব আহরণের উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। সেজন্য আরো আধুনিক ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) সংযোজন করা হবে। আগামী এক বছরের মধ্যে এনবিআর সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ইএফডির ব্যবহার নিশ্চিত করতে চায়। আসন্ন বাজেটে এ বিষয়ে নির্দেশনা থাকছে।
অত্যাধুনিক এই ডিভাইস এনবিআরের কেন্দ্রিয় সার্ভারের সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে। কোনো ব্যক্তি একটি পণ্য কেনার পর দোকান থেকে সরবরাহ করা চালানে এনবিআরের নির্দিষ্ট কোডসহ সেটি প্রিন্ট হবে। ফলে ভ্যাট ফাঁকির বিষয়টি এড়ানো যাবে।
এ বিষয়ে এনবিআরের চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বাসস’কে বলেন,আগামী অর্থবছরে কর আয়যোগ্য সবাইকে ট্যাক্স কমপ্লায়েন্ট করার পাশাপাশি ভ্যাট ফাঁকি রোধ করার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। এজন্য ইসিআর মেশিনের পরিবর্তে আরো আধুনিক ডিভাইস ইএফডি ব্যবহারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আগামী বাজেটে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা থাকবে বলে তিনি জানান।
তিনি আরো জানান,আগামী এক বছরের মধ্যে সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ইএফডির ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে।
শিল্পায়নের স্বার্থে আগামী বাজেটে করপোরেট করহার কমানো হবে এমন ইঙ্গিত করে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, করপোরেট কর কমানো হলে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা আহরণ চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে। সেজন্য আমরা সবাইকে ট্যাক্স কমপ্লায়েন্ট করার পাশাপাশি ভ্যাট ফাঁকি রোধের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি। সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ইএফডির ব্যবহার নিশ্চিত করে ভ্যাট ফাঁকি ঠেকাতে চাই।
অনেক ব্যবসায়ী ভ্যাট আদায় করার পরও সেটা জমা দেন না বলে তিনি অভিযোগ করেন।
নতুন পদ্ধতিতে ইলেকট্রনিক ডিভাইস থেকে যে চালান সরবরাহ করা হবে,সেটিতে এনবিআরের কোড সংযুক্ত না থাকলে বুঝতে হবে ভ্যাট ফাঁকি দেওয়া হচ্ছে। ফলে ভ্যাট ফাঁকি সহজে ধরা যাবে। ভোক্তাও নিশ্চিত হতে পারবেন তার প্রদত্ত ভ্যাট রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা হচ্ছে কি না।
এনবিআর সূত্র জানায়,তালিকাভুক্ত আমদানিকারকরা প্রয়োজনীয় ডিভাইস আমদানি করবে। তাদের কাছ থেকে ব্যবসায়ীরা ওই ডিভাইস কিনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে স্থাপন করবেন। আর ডিভাইসগুলো এনবিআরের সার্ভারের সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে। ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের আওতায় এই কার্যক্রম বাস্তবায়ন হবে।