শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বে অনন্য উচ্চতায় আসীন : সরকারি দল

99

সংসদ ভবন, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : রাষ্ট্রপতির ভাষণের জন্য আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের সদস্যরা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ আজ বিশ্বে এক অনন্য উচ্চতায় আসীন হয়েছে।
গত ৩ ফেব্রুয়ারি সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণে আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর এ আলোচনা শুরু হয়। ওই দিন চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাব উত্থাপন করলে সরকারি দলের সদস্য আ. স. ম ফিরোজ তা সমর্থন করেন।
গত ৩০ জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম ও বছরের প্রথম অধিবেশনের শুরুর দিন সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ সংসদে ভাষণ দেন।
রাষ্ট্রপতির ভাষণে আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আজ ১৪তম দিনে রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন, সরকারি দলের ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, হাবিবুর রহমান হাবিব, মোরশেদ আলম, ইকবাল হোসেন, এবাদুল করিম, বেগম সাগুফতা ইয়াসমিন ও বিকল্প ধারার মাহি বদরুদ্দোজা চৌধুরী অংশ নেন।
আলোচনায় অংশ নিয়ে রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, বর্তমান সরকার বাংলাদেশ রেলওয়েকে গণপরিবহনের অত্যন্ত আরাম দায়ক, সাশ্রয়ী, পরিবেশবান্ধব, গণমুখী এবং যুগোপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। রেলের উন্নয়নে ২০০৯ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৬৪টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। বর্তমান অর্থবছরে প্রায় ১০ হাজার ৯৩৯ কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন মেয়াদে সম্পাদনযোগ্য ৪০টি বিনিয়োগ প্রকল্প ৩টি কারিগরি সহায়তা প্রকল্পসহ মোট ৪৩টি প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ১০টি মেগা প্রকল্পের ২টি রয়েছে রেলওয়েতে। এর একটি হচ্ছে চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত এবং পদ্মা সেতু দিয়ে যশোর ও পরবর্তীতে ফরিদপুরের ভাঙা হয়ে পায়রা সমুদ্র বন্দর পর্যন্ত রেললাইন স্থাপন।
মন্ত্রী জানান, দেশের সমস্ত রেল ব্যবস্থাকে ব্রড গেজ এবং যেখানে মিটার আছে সেখানে ডুয়েল গেজ উন্নীত করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এবং দেশের প্রতিটি জেলা রেল নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হবে।
আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের অন্য সদস্যরা বলেন, বিভিন্ন খাতে অনন্য সাফল্যের ফলে শেখ হাসিনা আজ আন্তর্জাতিক নেতার স্বীকৃতি পেয়েছেন। এ স্বীকৃতি হিসেবে তিনি অসংখ্য আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছেন। সর্বশেষে মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে তিনি মানবতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। এ জন্য তিনি ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন।
বিকল্পধারার সদস্য মাহী বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগের সরকার পরিচালনা এবং রাজনৈতিক পলিসির সাথে বিকল্পধারার দ্বিমত রয়েছে। তবে স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রশ্নে আওয়ামী লীগসহ অপরাপর দলগুলোর সাথে ঐক্য সবসময়ের জন্য অটুট থাকবে।
সরকারি দলের সদস্য মোরশেদ আলম পুরান ঢাকা থেকে কেমিক্যালের গোডাউন সরিয়ে নেয়ার জন্য উদ্যোগ নিতে সরকারের প্রতি দাবি জানান।

image_printPrint