প্রধানমন্ত্রীকে ৯৮টি দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধান এবং আন্তর্জাতিক সংস্থার অভিনন্দন

82

ঢাকা, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ভূমিধস বিজয় অর্জনের মাধ্যমে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ায় এ পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৯৮ জন রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান এবং আন্তর্জাতিক সংস্থা প্রধানগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন।
বুধবার জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীর এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা জাতীয় সংসদকে এ কথা জানান।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড জে ট্রাম্প, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল, ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ও প্রধানমন্ত্রী ড. রামি হামদাল্লাহ, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং, চীনের প্রধানমন্ত্রী স্টেট কাউন্সিল অফ চায়না লি কেকিয়াং, সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন, সুইস কনফেডারেশন প্রেসিডেন্ট উলি মওয়ারার, ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি, সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান, কাতারের আমির তামিম বিন হামাদ আলথানি ও কাতারের প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আব্দুল্লাহ বিন নাসের বিন খলিফা আল-থানি, ফিজির প্রধানমন্ত্রী জেভি বাইনিমারামা, শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মৈত্রিপালা সিরিসেনা এবং শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রণিল বিক্রমাসিংয়ে, ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নামগিয়েল ওয়াংচুক, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং, ভুটানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী তেহেরিং তোবগে অভিনন্দন জানিয়েছেন।
তিনি বলেন,এ ছাড়াও ওমান সুলতান কাবুওস বিন সাইদ, ব্রুনাইয়ের সুলতান হাজী হাসানাল বলকিয়া, সুদানের প্রধানমন্ত্রী মুতাজ মুসা আবদুল্লাহ, মিসরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি, মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রভিন্দ কুমার জুগুনথ, নেপালের প্রধানমন্ত্রীকে পি শর্মা ওলি, সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন। মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সোলিহ, উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম ইয়াং নাম, উত্তর কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী পাক পং জু, নিকারাগুয়ার প্রেসিডেন্ট ড্যানিয়েল ওর্তেগা, লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি, ক্রোয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী আর্মেন প্লেনকোভিচ, বেলারুশের প্রধানমন্ত্রী সের্গেই রুমা, হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর ওরবান, নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহম্মদ বুহারি জিসিএফআর, কিউবার রাষ্ট্রপতি মিগুয়েল দিয়াজ-কেলেল বারমুয়েজ, এস্তোনিয়ার প্রধানমন্ত্রী জুরি রাতা, চেক প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রী আরেফার বাবিত, আফগান প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আশরাফ গনি, থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেনারেল প্রয়াত চ্যান-ও-চা, সার্বিয়ার প্রধানমন্ত্রী আনা ব্রানাবিক, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জাই- ইন, ঘানার প্রেসিডেন্ট নানা অ্যাডো ডঙ্কোয়া আকুফো-অ্যাডো, কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রীর প্রধান সামবেদ আকাশ মহা সেন পাডেই টিচো হুন সেন, পোল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী মাতুয়ুুজ মোয়াঈকিল এবং ভারতের কংগ্রেস সংসদীয় দলের চেয়ারপারসন সোনিয়া গান্ধী অভিনন্দন জানান।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, অস্ট্রিয়ান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসিপ তায়ীপ এরদোগান, গ্রীসের প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস টিপরাস, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন, নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী ম্যাকক রুট্টি, জর্ডানের প্রধানমন্ত্রী ওমর আল রাজ্জাজ, স্লোভাক প্রধানমন্ত্রী পিটার পেলেগ্রিনি, আজারবাইজান প্রধানমন্ত্রী নরভুজ মাদ্দাভভ, তিউনিশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ শাহেদ, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা প্রধানমন্ত্রীর ড. ড্যানিস জাভিযাদিক, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী এরনা সলবার্গ, ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী আয়রোস লোকেকে, ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী এডুয়ার্ড ফিলিপ, কিরগিজের প্রধানমন্ত্রী মুকাম্মেদক্যালি আবিলগাজেভ, আলজেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী আহমেদ ওউয়াহিয়া, ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রীড. আবিয়া আহমেদ, আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পশুইনান, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ, দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট মমামিলা সিরিল, জর্জিয়ান প্রধানমন্ত্রী মমুকা বখতাদেজ, স্লোভেনিয়ান প্রধানমন্ত্রী মারজান সেরেক এবং ম্যাসেডোনিয়ার প্রধানমন্ত্রী জরান জাইভ শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।
অন্যান্যরা যারা প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন, তারা হলেন- সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স, উপ-প্রধানমন্ত্রী এইচআরএম মোহাম্মদ বিন সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট, দুবাইর প্রধানমন্ত্রীও শাসক মোহাম্মদ বিন রাশেদ আল মাকতুম, আবুধাবিয়ের ক্রাউন প্রিন্স এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান কমান্ডার শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান, কাতারের ডেপুটি আমির আবদুল্লাহ বিন হামাদ আল-থানি, নিকারাগুয়ারা ভাইস প্রেসিডেন্ট রাসারিও মুরিল্লো, ভারতের মেঘালয় রাজ্যের গভর্নর তথাগত রায়, ভারতের গোয়ার গভর্নর মিদুদুল সিনহা, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেভেনাথ ফদনাসিস, আসামের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈই এবং শ্রীলংকান বিরোধীদলীয় নেতা মাহিন্দ্র্রা রাজাপাকসে।
তাদের পাশাপাশি, ডি -৮ এর মহাসচিব, দাতা সংগঠন দাতোর কুও জাফর কু শারী, আইপিএস নর্মান (নিউইয়র্ক) ওয়ালথার লিকহেমের প্রেসিডেন্ট, সার্কের মহাসচিব আমজাদ হোসেন, বিআইএমএসটিইচ এর মহাসচিব এম শহীদুল ইসলাম, ওয়াইসি সদস্য দেশ সমূহের ওআইসি পার্লমেন্টারি ইউনিয়নের মহাসচিব মওহুম খৌরাইচি নাস, ওআইসি মহাসচিব এ. আল-ওথাইমেন, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি, বিশ্ব ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শাফার, কলকাতার ভারত চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি সীতারাম শর্মা, দক্ষিণ এশীয় নারী ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রেম আহলুয়ালিয়া, এডিবি সভাপতি তাকিহিকো নাকো, জাপান-বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ফ্রেন্ডশিপ লীগের চেয়ারম্যান তরো এসো প্রধানমন্ত্রীশেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান।
প্রধানমন্ত্রী সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানদের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর প্রধানদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন, যারা তাঁকে এবং বাংলাদেশের জনগণকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছিলেন।
শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘বিশ্ব নেতৃবৃন্দের অভিনন্দন বার্তাগুলোতে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য এবং বাংলাদেশের জনগণের সমৃদ্ধির জন্য তারা আমাদের সরকারের সাথে একসঙ্গে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।’

image_printPrint