সড়কের মধ্যে থাকা বিপদনজক খুটি অপসারণে হাইকোর্ট নির্দেশ

60

ঢাকা, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : সারাদেশে সড়ক মহাসড়কের মধ্যে থাকা বৈদ্যুতিকসহ সকল বিপজ্জনক খুটি দ্রুত অপসারণে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।
জনস্বার্থে আনা এ সংক্রান্ত এক আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিল সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ এ আদেশ দেয়।
আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সাইয়্যেদুল হক সুমন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান।
ব্যারিস্টার সাইয়্যেদুল হক সুমন সাংবাদিকদের বলেন, সেবা প্রদানকারি প্রতিষ্ঠান সড়ক মহাসড়কে খুঁটি রেখে দেয়। এতে সাধারণ মানুষ বিপদের মুখোমুখি হয়। এসব বিষয় নিয়ে আদালতে আবেদন করি। আদালত আবেদনের শুনানি নিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে এসব খুঁটি অপসারণে নির্দেশ দিয়েছে। অপসারণ দুই মাসের মধ্যে করতে হবে।
তিনি জানান, একই সঙ্গে বিপজ্জনক এসব খুটি অপসারণের নির্দেশ কেন দেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতি রুল জারি করেছে আদালত। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সচিব, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি)’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক, নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ওজোপাডিকো)‘র ব্যবস্থাপনা পরিচালককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
আদেশ বাস্তবায়নে সহযোগিতা করতে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকেও নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।
উল্লেখ্য, গত শনিবার রিটকারি আইনজীবী ব্যারিস্টার সাইয়্যেদুল হক সুমন বাড়ি ফেরার পথে নরসিংদীর শিবপুরে সড়কের মধ্যে একটি খুটি দেখতে পান। এ সময় তিনি সেখানে নেমে ওই খুঁটির বিষয়টি তুলে ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লাইভ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। তার প্রতিক্রিয়ায় এ খুঁটির কারণে বিভিন্ন দূর্ঘটনার কথা তুলে ধরেন। এরপরই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ওই খুটি অসারণ করে ফেলে। কিন্তু এরপর থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে সড়কের মধ্যে খুঁটি সম্বলিত অসংখ্য ছবি ও তথ্য পাঠায় তার ম্যাসেঞ্জারে। পরে বিষয়টি নিয়ে তিনি হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন।

image_printPrint