নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালিত হলো ডিএমপি’র ৪৪তম প্রতিষ্ঠা দিবস

141

ঢাকা, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ (বাসস) : নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালিত হলো ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ৪৪তম প্রতিষ্ঠা দিবস।
আজ বুধবার বিকেলে কেক কেটে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৪৪তম প্রতিষ্ঠা দিবস উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান এমপি। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দিন ও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ডিএমপি কমিশনার মো: আছাদুজ্জামান মিয়া।
এছাড়াওআমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে মন্ত্রী পরিষদের সদস্যবৃন্দ, সংসদ সদস্য, বিদেশী কূটনৈতিকবৃন্দ, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিববৃন্দ, সাংবাদিক, ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব, সুশীল সমাজ, ব্যবসায়ী, বিশিষ্ট নাগরিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
ডিএমপি’র প্রতিষ্ঠা দিবসে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদক নির্মূলে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী সফলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে।
তিনি বলেন,অতীতের পুলিশ বর্তমান পুলিশ এক না। বর্তমান পুলিশ জনগণের বন্ধু হয়ে জনগণের আস্থা ও ভালোবাসা অর্জন করতে পেরেছে।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের ধারাবাহিক দুই মেয়াদে ৮২ হাজারেরও বেশি পুলিশ সদস্য নিয়োগ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশ সার্ভিসকে সবসময় অগ্রাধিকার দিয়ে থাকেন। পুলিশের সক্ষমতা বাড়াতে নতুন নতুন যানবাহন সংযোজন করা হচ্ছে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দিন বলেন, উন্নয়ন ও জননিরাপত্তায় পুলিশ সার্ভিসের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। এই মহানগর ও মানুষের নিরাপত্তা বিধানে ডিএমপি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
আইজিপি বলেন, ৪৪বছর আগে ডিএমপি’র পথচলা শুরু হয়েছিল। এই গৌরবময় পথচলা অব্যহত থাকবে। পুলিশ এককভাবে তার দায়িত্ব পালন করতে পারে না। সেজন্য প্রয়োজন জনগণের সহযোগিতা ও জনগণের মনের কাছে যাওয়া। ডিএমপি সে কাজটি পেরেছে। ডিএমপি’র প্রতি মানুষের আস্থা অনেক বেড়েছে । রাজধানীতে প্রতিনিয়ত বড় বড় ইভেন্টে নিরবচ্ছিন্ন নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছে ডিএমপি।
তিনি আরো বলেন, থানাকে সেবার কেন্দ্রে পরিনত করতে হবে। থানায় এসে যাতে সকল নাগরিক সমঅধিকার নিয়ে আইনী সেবা পায় সে নিশ্চিয়তা দিতে হবে। মাদক ও জঙ্গিবাদ আমাদের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করে মাদক ও জঙ্গিদের নির্মূল করতে হবে।
ডিএমপি কমিশনার মো: আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ডিএমপি সদস্যরা ঢাকা মহানগরীর প্রায় ২ কোটি মানুষের জানমালের নিরাপত্তায় নিষ্ঠা ও পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করছে।
তিনি আরো বলেন, জনগনের সেবার মান নিশ্চিত করা, অপরাধ দমন ও প্রযুক্তির ব্যবহার করে ঢাকা মহানগরীকে একটি বাসযোগ্য নগর তৈরি করাই আমাদের লক্ষ্য। জনবান্ধব, নারী ও শিশু বান্ধব পুলিশি ব্যবস্থায় ডিএমপি’র ৩৪ হাজার সদস্য বদ্ধ পরিকর।
ডিএমপি’র প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে সন্ধ্যায় রাজারবাগ পুলিশ লাইনস্ মাঠে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

image_printPrint