শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে দ্রুত ধাবিত হচ্ছে : সরকারি দল

সংসদ ভবন, ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : রাষ্ট্রপতির ভাষণের জন্য আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের সদস্যরা বলেছেন, বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাসসহ নানামুখী ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে দ্রুত ধাবিত হচ্ছে।
গত ৩ ফেব্রুয়ারি সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণে আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর এ আলোচনা শুরু হয়। ওই দিন চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাব উত্থাপন করলে সরকারি দলের সদস্য আ. স. ম ফিরোজ তা সমর্থন করেন।
গত ৩০ জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম ও বছরের প্রথম অধিবেশনের শুরুর দিন সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ সংসদে ভাষণ দেন।
রাষ্ট্রপতির ভাষণে আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আজ নবম দিনে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার ও সরকারি দলের এ কে এম রহমতুল্লাহ আলোচনায় অংশ নেন।
শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, বিএনপি জামায়াতের অগ্নিসন্ত্রাস, নিপীড়নের পরও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ট নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের শিখরে পৌঁছেছে। কৃষককে পর্যাপ্ত সার সরবরাহ করার কারণে দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ।
তিনি খাদ্যে ভেজালকারী এবং খাদ্যের দামে যারা অতিরিক্ত মুনাফা করে দেশে কৃত্তিম সংকট তৈরি করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আহবান জানান।
তিনি বলেন, শিল্প প্রতিষ্ঠানে সঠিক সময়ে গ্যাস সরবরাহ করায় এখন শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো উৎপাদন করতে সক্ষম হচ্ছে। সরকারের নেতৃত্বে পদ্মাসেতুর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। ইতোমধ্যে মেট্রোরেল ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এদেশের মানুষ শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের উন্নয়নকে ভোট দিয়েছে। জামায়াত-বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। সন্ত্রাস-দুর্নীতির কারণে এদেশে জামায়াত-বিএনপি আর মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না।
একেএম রহমতুল্লাহ বলেন, দেশে বিদেশে আওয়ামী লীগের ব্যাপক জনপ্রিয়তা বাড়ার কারণে এবারের নির্বাচনে দেশের মানুষ বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে সরকার গঠনে সহযোগিতা করেছে। অপরদিকে সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও নৈরাজ্যের কারণে বিএনপি-জামায়াতের নেতৃত্বাধীন তথাকথিত ঐক্যফ্রন্টকে জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের খাদ্য উৎপাদন, কৃষি, শিল্প, বিদ্যুৎ, শিক্ষা, যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ প্রতিটি খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।