আনসার এবং গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা অতন্দ্র প্রহরীর ন্যায় জননিরাপত্তায় কাজ করছে : প্রধানমন্ত্রী

106

ঢাকা, ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ আনসার এবং গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা সারাদেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে অতন্দ্র প্রহরীর ন্যায় জননিরাপত্তা রক্ষায় কাজ করছে।
আগামীকাল ১২ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ সোমবার দেয়া এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রতিষ্ঠার পর থেকে আনসার বাহিনী দেশের জনগণ এবং সম্পদের নিরাপত্তা বিধানে কাজ করে যাচ্ছে। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় এ বাহিনীর সদস্যদের ভূমিকা প্রশংসনীয়।’
তিনি বলেন, ‘আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী তৃণমূল পর্যায়ের সুবিধাবঞ্চিত নারীদের বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং স্বল্প সুদে ঋণের ব্যবস্থা করে আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছে।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন ছাড়াও নিয়মিতভাবে শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় এ বাহিনীর রয়েছে উল্লেখযোগ্য অবদান। প্রায় ৬১ লক্ষ সদস্য-সদস্যার এ বাহিনীর তৃণমূল পর্যায়ের অর্ধেক সদস্যই নারী।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ আজ ধারাবাহিক উন্নয়নের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। স্বল্পোন্নত দেশ হতে প্রবেশ করেছে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে। বাংলাদেশের উন্নয়ন ও সাফল্যের অন্যতম অংশীদার বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী।’
তিনি বলেন, বৃহৎ ও সুশৃঙ্খল এ বাহিনীর সদস্যদের দেশপ্রেম ও দায়িত্বশীলতা সত্যিই প্রশংসনীয়। দায়িত্ব পালন কালে এ বাহিনীর নিহত, আহত সদস্য এবং তাদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর রয়েছে গৌরবময় ভূমিকা। ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের মুজিবনগরে বাংলাদেশের প্রথম সরকারের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে সরকার প্রধানকে ১২ জন বীর আনসার সদস্য ‘গার্ড অব অনার’ প্রদান করেন। স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রারম্ভে এ বাহিনীর চল্লিশ হাজার রাইফেল ছিল মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম অস্ত্র-শক্তি।’
শেখ হাসিনা মহান ভাষা আন্দোলনের এ মাসে ভাষা শহিদ আনসার কমান্ডার আব্দুল জব্বারসহ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে এ বাহিনীর যে সকল সদস্য ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন, তাঁদেরকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৩৯তম জাতীয় সমাবেশ উপলক্ষে বাহিনীর সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সদস্যদের শুভেচ্ছা জানান এবং বাহিনীর ৩৯তম জাতীয় সমাবেশ উপলক্ষে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

image_printPrint