রাষ্ট্রপতির ভাষণ উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়ার দিকনির্দেশনা : সরকারি দল

281

সংসদ ভবন, ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : রাষ্ট্রপতির ভাষণের জন্য আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের সদস্যরা বলেছেন, রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণে ২০২১ থেকে ’৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন।
গত ৩ ফেব্রুয়ারি সংসদে এ আলোচনা শুরু হয়েছে। ওই দিন চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাব উত্থাপন করলে সরকারি দলের সদস্য আ স ম ফিরোজ তা সমর্থন করেন।
গত ৩০ জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম ও বছরের প্রথম অধিবেশনের শুরুর দিন সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ সংসদে ভাষণ দেন।
রাষ্ট্রপতির ভাষণে আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আজ চতুর্থ দিনে হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাস, সরকারি দলের আবদুল হাই, নুরুন্নবী চৌধুরী, আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী, বদরুদ্দোজা মো. ফরহাদ হোসেন ও আ ক ম সারোয়ার জাহান আলোচনায় অংশ নেন।
আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের সদস্যরা বলেন, রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণে সরকারের সার্বিক উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরেছেন। তিনি সরকারের এমন কোন খাত নেই যা সম্পর্কে আলোকপাত করেননি।
তারা বলেন, একাদশ জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি পরাজয়ের পর একের পর এক মিথ্যাচার করছে। দেশে মিথ্যাচারের জন্য যদি কোন কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিগ্রী দেয়ার ব্যবস্থা থাকতো তাহলে সেই ডিগ্রী পেতো বিএনপির নেতা কর্মীরা।
তারা বলেন, বিএনপির সময়ে বিরোধী দলের নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২১ আগস্টে যখন গেনেড হামলা হয় তখন সংসদে এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সদস্যরা কথা বলতে চেয়েছিল। কিন্তু তারা তখন কথা বলতে দেয়নি, অথচ তারাই আজ বড় বড় কথা বলছে। গণতন্ত্রের কথা তাদের মুখে শোভা পায় না।
সরকারি দলের সদস্যরা বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির ভরাডুবির একমাত্র কারণ সরকারের অব্যাহত উন্নয়ন আর বিএনপির জনবিচ্ছিন্নতা। ৭৩ সালে যেভাবে এদেশের মানুষ জাতির পিতাকে ভোট দিয়েছিলেন তেমনি এবার তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে জনগণ ভোট দিয়েছে।

image_printPrint