মেলায় উল্লেখযোগ্য বিক্রির জন্য ছুটির দিনের অপেক্ষায় প্রকাশকরা

170

ঢাকা, ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : একুশের গ্রন্থমেলায় উল্লেখযোগ্য বিক্রির জন্য সাপ্তাহিক ছুটির দিনের জন্য অপেক্ষা করছেন প্রকাশকরা। তারা বলেছেন, মেলায় নতুন পুরনো মিলে অসংখ্য ভাল বই এসেছে। কিন্তু সে অনুসারে এখনও উল্লেখযোগ্য বিক্রি শুরু হয়নি। ছুটির দিনই ভরসা।
বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির সভাপতি সৈয়দ জাকির হোসেন বাসসকে বলেন, মেলার ছয়দিনে অসংখ্য ভাল বই প্রকাশিত হয়েছে বিভিন্ন স্টলে। ছয়দিন চলে যাচ্ছে। বিক্রি আশানুরুপ নয়। সাধারণত: আমরা ছুটির দিনের অপেক্ষায় থাকি। এবারও সেই অপেক্ষায় রয়েছি।
অন্যন্য’র স্বত্বাধিকারী মনিরুল আলম বাসসকে বলেন, তাদের স্টলে এ পর্যন্ত ২৯টি নতুন বই এসেছে। এর মধ্যে গবেষণার বই বেশি। উপন্যাস ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই রয়েছে। বিক্রি আশানুরুপ নয় বলে তিনি জানান।
তিনি অভিযোগ করেন, মেলায় কোন স্টলে কি বই পাওয়া যাবে, এই ব্যবস্থাটা এবারও করতে পারেনি আয়োজকরা। ক্রেতার পক্ষে সব স্টল ঘুরে বই খোঁজ করা সম্ভব হয়ে উঠে না।
অস্বেষা প্রকাশনীর স্বত্ত্বাধিকারী শাহাদাত হোসেন বলেন, আজ ছয়দিন চলছে মেলার। আমাদের ৩৩টি নতুন বই এসেছে। এর মধ্যে গবেষণা, উপন্যাস, মুক্তিযুদ্ধ, ভাষা আন্দোলনের বই রয়েছে। বিক্রি তেমন উল্লেখযোগ্য নয়। গত বছরের প্রথম সপ্তাহে যে বিক্রি হয়েছিল, এবার তার চেয়ে কম।
কথা প্রকাশনী এবার ৮০টির মতো নতুন বই স্টলে এনেছে। তাদের বিক্রিও আকাংখা অনুযায়ি নয় বলে স্টল থেকে একজন বিক্রেতা জানান। তারা চিরায়ত সাহিত্যের বেশ কয়েকটি রচনাবলীও এবার প্রকাশ করেছে। প্রকাশ করেছে শ্রেষ্ঠ প্রবন্ধ সিরিজের পাঁচটি বই।
প্রায় চারশত বইয়ের প্যাভিলিয়ন অবসর প্রকাশনীর। নতুন বই এসেছে ১৯টি। এ স্টল থেকে বিক্রেতা সাদিয়া আফরোজ জানান, গত দুইদিনে বিক্রি কিছুটা ভাল। তবে ছুটির দিনে ভাল বিক্রির জন্য তারা অপেক্ষা করছেন।
ক্রেতাদের জন্য বই খোঁজ করার ব্যাপারে মেলা কমিটির সদস্য সচিব ও বাংলা একাডেমির পরিচালক ড. জালাল আহমদ বাসসকে জানান, প্রতিদিনের নতুন বই বাংলা একাডেমির ভেতরে বর্ধমান হাউজের পাশে একাডেমির স্টলে দর্শকদের জন্য প্রদর্শন করা হচ্ছে। সেখান থেকে ক্রেতারা নতুন বইয়ের নাম ও প্রকাশনা সংস্থার নাম জানতে পারছেন। আর স্টলের খোঁজ করতে পারবেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও একাডেমির ভেতরে স্টলম্যাপ থেকে।
আজ মেলার মূলমঞ্চে বিকেলে ‘কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় : জন্মশতবর্ষ শ্রদ্ধাঞ্জলি ’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আবুল হাসনাত। সভাপতিত্ব করেন কবি আসাদ চৌধুরী। আলোচনায় অংশ নেন বিকল গুহ, গোলাম কিবরিয়া পিনু ও শোয়াইব জিবরান। পরে কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ, আবৃত্তি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শিল্পীরা গান পরিবেশন করেন।

image_printPrint