রংপুরে থামলো চিটাগং

114

চট্টগ্রাম, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯ (বাসস) : শেষ পর্যন্ত চিটাগং ভাইকিংস-এর জয়রথ থামালো রংপুর রাইডার্স। সাত ম্যাচে ছয়টি জয় পেয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে থাকা চিটাগং ভাইকিংস আজ আট ম্যাচের চারটিতে জয় পাওয়া রংপুর রাইডার্সের কাছে ৭২ রানে পরাজিত হয়েছে।
জয়ের জন্য বিশাল ২৪০ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে খেলতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৭ সংগ্রহ করে। বড় লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে যথার্থ শুরু এনে দেন দুই ওপেনার আফগানিস্তানের মোহাম্মদ শেহজাদ এবং লোকাল বয় ইয়াসির আলী। তবে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি শেহজাদ। ১২ বলে ২০ রান করে ফরহাদ রেজার শিকার হন তিনি। তবে অপর প্রান্তে অবিচল ছিলেন আলী। ইনিংসের ১৫ দশমিক ৫ ওভার পর্যন্ত ব্যাটিং করে ৪৮ বলে ৭৮ রানের মাথায় মাশরাফি বিন মর্তুজার শিকার হওয়ার আগে ছয়টি চার এবং তিনটি ছক্কা হাকান আলী। অবশ্য এমন অসাধারণ একটি ইনিংস খেলে তিনি কেবলমাত্র হারের ব্যবধানটাই কমাতে পেরেছেন। এছাড়া ১১ বলে ২০ রান করেন অধিনায়ক মুশফিক। মোসাদ্দেকের সংগ্রহ ১৩ বলে ১৪ রান। টেল এন্ডারদে ও আর কেউ বড় সংগ্রহ এনে দিতে না পারায় শেষ পর্যন্ত ১৬৭ রানে থামে চিটাগং। আবু জায়েদ ১০ এবং খালেদ আহমেদ ৬ রানে অপরাজিত থাকেন। মাশরাফি ৩৪ রানে নেন ৩ উইকেট।
এর আগে ইংল্যান্ডের এ্যালেক্স হেলস এবং দক্ষিণ আফ্রিকার রিলি রুশোর জোড়া সেঞ্চুরিতে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ৪ উইকেটে টুর্নামেন্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ ২৩৯ রান সংগ্রহ করেছে রংপুর রাউডার্স।
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ(বিপিএল) টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেনেন্টে ষষ্ঠ আসরের ৩০তম ও চিটাগং পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টসের বিপরীতে আগে ব্যাটিং পায় মাশরাফি বিন মর্তুজার রংপুর। ইনিংস ওপেন করতে নামেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের মারকুটে ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল এবং হেলস। এ ম্যাচেও ব্যর্থ হয়েছেন গেইল। মোকাবেলা করা ষষ্ঠ বলে ব্যক্তিগত ২ ও দলীয় ৬ রানে আবু জায়েদের বলে এলবিডব্লিুর শিকার হন গেইল। তবে আরেক প্রান্তে অবিচল ছিলেন হেলস। পেয়েছেন সেঞ্চুরি। টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পেতে বল খেলেছেন ৪৮টি। প্রতিপক্ষের বোলারদের ওপর তান্ডব চালিয়ে পাঁচটি ছয় এবং ১১টি চার-এ সমান একশ রান করে সিকান্দার রাজার বলে আউট হন হেলস। তার ন্যায় ব্যাটে ঝড় তুলে ১০০ রানে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকে রুশো। ৫১ বল মোকাবেলায় আটটি চার এবং ৬টি ছক্কার সাহায্যে সমান একশ’ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। দুই সেঞ্চুরি হওয়া ম্যাচে রুশোর সাথে ৪ বলে ১০ রানে অপরাজিত ছিলেন নাহিদুল ইষলাম। চিটাগং-এর আবু জায়েদ ৪ ওভার বোলিং করে ৩৫ রানে নেন ২ উইকেট।
সংক্ষিপ্ত স্কোর : ২৩৯, ২০ ওভার(হেলস ১০০, রুশো ১০০*, আবু জায়েদ ২/৩৫।
চিটাগং ভাইকিংস : ১৬৭,২০ ওভার ( ইয়াসির আলী ৭৮, মুশফিক ২২: মাশরাফি ৩/৩৪।
ম্যাচ সেরা : এ্যালেক্স হেলস (রংপুর রাআডিার্স)।

image_printPrint