নড়াইলে আমন ধানের ভালো ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

156

নড়াইল, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : চলতি মৌসুমে নড়াইলের তিন উপজেলায় আমন ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। কৃষকরা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ হাজার ১শ’৩৫ হেক্টর বেশি জমিতে আমনের চাষ করেছেন। এ তথ্য দিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। গত বছরের তুলনায় এ বছর আবাদ ভালো হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে।
কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, নড়াইলের তিন উপজেলায় চলতি মৌসুমে ৩৪ হাজার ৭শ’ হেক্টর জমিতে ৯০ হাজার ৬শ’৬৭ মেট্রিক টন ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। অনুকূল আবহাওয়া থাকায় আমনের চাষ হয়েছে ৩৭ হাজার ৮শ’৭৫ হেক্টর জমিতে।উপজেলা ওয়ারী আমন ধানের চাষ হয়েছে-সদর উপজেলায় ১৯ হাজার ৬শ’৪৫ হেক্টর জমিতে, কালিয়া উপজেলায় ৯হাজার ৪শ’৮০ হেক্টর জমিতে এবং লোহাগড়া উপজেলায় ৮হাজার ৭শ’৫০ হেক্টর জমিতে।এ ৩ উপজেলার বিস্তীর্ণ মাঠের পাকা ধান কাটা প্রায় শেষের পথে।মোট আবাদকৃত জমির মধ্যে ৭৫ভাগ জমির ধান ইতোমধ্যে কাটা হয়েছে বলে কৃষি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। আমন ধান কাটা শুরুর পর থেকে দরিদ্র লোকদের কাজের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে একজন কৃষি শ্রমিক প্রতিদিন ধানকাটা বাবদ ৫শ’ টাকা থেকে ৬শ’ টাকা আয় করছেন।
বিভিন্ন হাট বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বর্তমানে একমণ (৩৭.৩৩কেজি) আমন ধান ৬৫০টাকা থেকে ৭শ’ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
কৃষি কর্মকর্তাদের নিয়মিত তদারকি এবং কৃষকদের আগ্রহে প্রতি বছর এ জেলায় আমনের আবাদ বাড়ছে বলে জানালেন নড়াইল কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক চিন্ময় রায়।
বাসস’র এ প্রতিনিধি নড়াইল সদর,কালিয়া ও লোহাগড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখেছেন,গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর ধানের উৎপাদন খুব ভালো হয়েছে। লোহাগড়া উপজেলার আমাদা গ্রামের মনিরুজ্জামান তালুকদার কালু (৫৫) জানান, তিনি এ বছর প্রায় ২০ একর জমিতে আমনের আবাদ করেছেন এবং উৎপাদনও ভালো হয়েছে।

image_printPrint