ইউনাইটেডকে হারিয়ে এফএ কাপের শিরোপা জিতলো চেলসি

51

ওয়েম্বলি, ২০ মে, ২০১৮ (বাসস) : ইডেন হ্যাজার্ডের পেনাল্টিতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ১-০ গোলে পরাজিত করে এফএ কাপের শিরোপা জিতেছে চেলসি। ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শনিবার রাতে ২২ মিনিটে স্পট কিক থেকে গোল করে হ্যাজার্ড কোচ এন্টোনিও কন্টেকে জয় উপহার দেন।
সম্ভবত এটাই চেলসির হয়ে কোচ হিসেবে কন্টের শেষ ম্যাচ। অন্যদিকে ফাইনালে হারের কারনে এবারের মৌসুমে শিরোপা বিহীন থাকতে হলো ম্যান ইউকে।
ইংলিশ ফুটবলে অভিষেক মৌসুমেই গত আসরে চেলসিকে প্রিমিয়ার লীগের শিরোপা উপহার দেবার পরে এবার কন্টের অধীনে চেলসি পঞ্চম স্থানে থেকে লীগ শেষ করে। যে কারনে চ্যাম্পিয়নস লীগে খেলার যোগ্যতাও হারায়। মূলত পুরো মৌসুম জুড়েই ব্লুজদের পারফরমেন্সের অভাবে কন্টের ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনা চলেছে। ইতালিয়ান এই কোচও তার ভবিষ্যত নিয়ে বারবারই কথা বলেছেন, কালও তার ব্যতিক্রম ছিলনা, ‘আমি প্রথম ব্যক্তি যে বিষয়টি ভালভাবে বুঝতে পারবো। কারন আমি ইংল্যান্ডের একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্লাবের কোচ। আর আমার কাছে এই ক্লাবের দাবি থাকতেই পারে।’
কিন্তু নিজের কোচিং ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত নক আউট প্রতিযোগিতায় শিরোপা জয়ের পরে আত্মবিশ্বাসী কন্টে বলেছেন, কঠিন একটি মৌসুম কাটানোর পরে আমি এটাই প্রমান করেছি যে আমি একজন ‘সিরিয়াল উইনার’। এটা সত্যি, অতীতের থেকে এই প্রতিযেগিতায় সবগুলো ম্যাচের জয় আমাকে দারুন স্বস্তি দিয়েছে।
এদিকে ইউনাইটেড ম্যানেজার হোসে মরিনহো বলেছেন, ‘আমি তাদের অভিনন্দন জানাচ্ছি, কারন তারা জয়ী হয়েছে। কিন্তু আমার কাছে মনে হয়না এই জয়টা তাদের প্রাপ্য ছিল।’
নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটির থেকে ১৯ পয়েন্ট পিছিয়ে ইউনাইটেডর দ্বিতীয় স্থানে থেকে এবারের মৌসুম শেষ করেছে। তারপরেও ইউনাইটেডের অতিরিক্ত রক্ষনাত্মক কৌশলের কারনে মরিনহোকে প্রায়ই সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে।
ব্লুজদের হয়ে শেষ ম্যাচ হলেও কন্টে নিজের সিদ্ধান্ত গ্রহণে বরাবরের মতই সাহসী ছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় প্রথমবারের মত এবারের এএফ কাপ মৌসুমে গোলবার সামলানোর দায়িত্বে তিনি দলের প্রথম পছন্দ থিবাট কোরটোয়িসের ওপর আস্থা রাখেন। বিরতির আগে বেশ কয়েকটি আক্রমন রুখে দিয়ে কোরটোয়িস ইউনাইটেডকে হতাশ করেছে। গোঁড়ালির ইনজুরির কারনে ইউনাইটেডের শীর্ষ গোলদাতা রোমেলু লুকাকু ছিলেন না মূল একাদশে। তবে ৭৩ মিনিটে মার্কোস রাশফোর্ডের স্থানে লুকাকুকে মাঠে নামানো হয়। লুকাকুকে দলে না পাওয়াটা অবশ্যই প্রভাব ফেলেছে বলে মরিনহো জানিয়েছেন। তিনি বলেন, দলের গুরুত্বপূর্ণ সদ্যস্যকে ছাড়া সবকিছু গোছানো কঠিন হয়ে পড়ে। তবে কোন খেলোয়াড় যদি নিজে থেকেই বলে সে ম্যাচ শুরু করতে প্রস্তুত নয় সেখানে মূলত কিছু করার থাকেনা।
লুকাকুর অনুপস্থিতিতে চেলসি দ্রুতই নিজেদের গুছিয়ে নেয়, বিশেষ করে মধ্যমাঠে হ্যাজার্ড ছিলেন দারুন উজ্জ্বল। উজ্জীবিত এই বেলজিয়ান মিডফিল্ডারের একটি আক্রমন থেকেই ২২ মিনিটে পেনাল্টি আদায় করে নেয় চেলসি। ডি বক্সের ভিতর ফিল জোনসের চ্যালেঞ্জ রেফারি মাইকেল অলিভারের চোখ এড়ায়নি। যদিও চেলসি খেলোয়াড় ও কন্টে হলুদ কার্ডের পরিবর্তে লাল কার্ডের দাবী জানিয়েছিল। স্পট কিক থেকে হ্যাজার্ড ডেভিড ডি গিয়াকে পরাস্ত করতে ভুল করেননি। এটি মৌসুমে হ্যাজার্ডের ১৮তম গোল।

image_printPrint