মেলায় উৎসাহ নিয়ে কর দিচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধারা

258

ঢাকা, ১৫ নভেম্বর, ২০১৮(বাসস) : আয়কর মেলায় সাধারণ করদাতাদের পাশাপাশি উৎসাহ ও উদ্দীপনার সাথে মুক্তিযোদ্ধা ও দেশের জ্যেষ্ঠ নাগরিকরা কর প্রদান করছেন। দাখিল করছেন আয়কর বিবরণী। এক দরজায় সব ধরনের করসেবা পেয়ে তারা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।
রাজধানীর বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে আয়কর মেলার তৃতীয় দিনে বিভিন্ন বুথ ঘুরে এমন দৃশ্য চোখে পড়ে।
আয়কর মেলার সমন্বয়ক ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য জিয়া উদ্দিন মাহমুদ বাসসকে বলেন,‘মেলায় আমরা মুক্তিযোদ্ধা ও সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য আলাদা বুথের ব্যবস্থা রেখেছি। মেলায় এসে তারা উৎসাহ নিয়ে কর প্রদান করছেন।এখানে তারা আয়কর রিটার্ন দাখিল,আয়কর গণনা,রিটার্নের প্রাপ্তি স্বীকারপত্র এবং কর প্রদানের সুযোগ পেয়ে খুশি হচ্ছেন।’
তিন দিনে মেলায় প্রায় ২০০ মুক্তিযোদ্ধা কর প্রদান করেছেন বলে তিনি জানান।
এনবিআরের এই কর্মকর্তা বলেন,মেলায় এসে উৎসাহ উদ্দীপনার সঙ্গে করদাতারা কর প্রদান করছেন পৃথিবীতে এমন দৃশ্য অদ্বিতীয়।আমরা এটি করতে পেরেছি।মেলার পরিবেশে কর কার্যালয়েও সেবা প্রদান করা হবে বলে তিনি জানান।
কর দিতে আসা মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বলেন,‘দেশ পরিচালনার অর্থ জনগণের কাছ থেকে নিয়ে থাকে সরকার।ওই অর্থ দেশের উন্নয়ন কাছে ব্যয় হয়। আমরা অর্থ না দিলে সরকার অর্থ পাবে কোথায়।তাই দেশের উন্নয়নের স্বার্থে কর দিতে এসেছি।’
তিনি বলেন,মেলায় উৎসবমূখর পরিবেশে কর প্রদান করতে পেরে খুশি। বিশেষ করে মেলায় হাতের নাগালে কর সংশ্লিষ্ট সব সেবা পেয়ে তিনি স্বস্তি প্রকাশ করেন।
মেলায় মুক্তিযোদ্ধা ও জ্যেষ্ঠ নাগরিকদের পাশাপাশি প্রতিবন্ধীদের জন্যও পৃথক বুথ খোলা হয়েছে। সেখানে তারা কর কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় আয়কর বিবরণী দাখিল ও কর প্রদান করতে পারছেন।
উল্লেখ্য,সাধারণ করদাতাদের আয়সীমা আড়াই লাখ টাকা।কিন্তু মুক্তিযোদ্ধাদের কর আয়সীমা চার লাখ ২৫ হাজার টাকা এবং সিনিয়র সিটিজেনদের (৬৫ ঊর্ধে) ৩ লাখ টাকা।
সারাদেশে গত মঙ্গলবার থেকে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা শুরু হয়েছে। চলবে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত। ঢাকায় কেন্দ্রীয়ভাবে অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে মেলা হচ্ছে।প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মেলা খোলা থাকছে।

image_printPrint