দেশের মানুষ ভোট দিয়ে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করার জন্য প্রহর গুণছে : মায়া

ঢাকা, ১০ নভেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম আগামী নির্বাচনকে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে কেন্দ্রভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী গড়ে তোলার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
নির্বাচনকে ঘিরে দেশে উৎসবের আমেজ শুরু হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন,‘দেশের মানুষ ভোট দিয়ে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করার জন্য প্রহর গুণছে। নির্বাচনে কারো আসা না আসা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। এর জন্য নির্বাচন থেমে থাকবেনা।’
মায়া চৌধুরী আজ চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলাস্থ নিজ বাড়িতে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে উঠান বৈঠককালে একথা বলেন। মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি,সাধারণ সম্পাদকসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
ত্রাণমন্ত্রী বলেন,‘নির্বাচনকে ঘিরে বহুমুখী মেরুকরণ ও কূটচাল শুরু হয়েছে। জনবিচ্ছিন্ন তথাকথিত নেতারা বাগাড়ম্বর শুরু করেছে। এর সাথে যুক্ত হয়েছে দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্র। এসব মোকাবিলা করে আগামী নির্বাচনকে সাফল্যমন্ডিত করতে হবে, গণতন্ত্রকে অব্যাহত রাখতে হবে।’
মন্ত্রী বলেন, নির্বাচন এলে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীরা সংখ্যালঘুদের ওপর বিভিন্ন ধরনের হুমকি ও নির্যাতন শুরু করে। এর বিরুদ্ধে এখনই সতর্ক থাকতে হবে ও প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
নির্বাচনকে ঘিরে কোন এলাকায় অচেনা মানুষের আনাগোনা লক্ষ্য করা গেলে সাথে সাথে উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অবহিত করারও আহ্বান জানান তিনি। এ সময় তিনি সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড তুলে ধরে বলেন, সরকার প্রত্যেকটি স্কুল-কলেজের অবকাঠামোগত সম্প্রসারণ করেছে। এর ফলে ক্রমবর্ধমান শিক্ষার্থীদের ক্লাশরুমের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয়েছে। তিনি বলেন, আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে প্রত্যেক স্কুল-কলেজে আইসিটি শিক্ষা চালু করা হয়েছে।
প্রত্যেক উপজেলায় সরকারি কারিগরি স্কুল স্থাপনকে কর্মমুখী শিক্ষার প্রসারের উদ্যোগ বলে মন্ত্রী মন্তব্য করেন। তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সহশিক্ষার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, গ্রামের কুসংস্কার দূরীকরণ, বাল্যবিবাহ, মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ মোকাবিলায় সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সক্রিয় ভূমিকা রাখতে হবে।