মন্ট্রিল কনভেনশন রেটিফিকেশন এখন সময়ের দাবি : বিমানমন্ত্রী

76

ঢাকা, ৯ মে, ২০১৮ (বাসস) : বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল বলেছেন, মন্ট্রিল কনভেনশন রেটিফিকেশন এখন সময়ের দাবি।
ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট এসোসিয়েশনের (আইএটিএ) এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট কনরাড ক্লিফোর্ড আজ বুধবার সকালে সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রীর সাথে তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন।
শাহজাহান কামাল বলেন, বাংলাদেশ যদি মন্ট্রিল কনভেনশন রেটিফিকেশন করতো তাহলে ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতরা প্রত্যেকেই ২৫ হাজার মার্কিন ডলার, প্রতি কেজি ব্যাগেজের জন্য ২৫ মার্কিন ডলার এবং কার্গো কেজি প্রতি ২৫ মার্কিন ডলার করে পেতেন।
এসময় মন্ত্রী উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ এখনও মন্ট্রিল কনভেনশন রেটিফিকেশন না করায় বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত যাত্রীরা ক্ষতিপূরণ পাবে ওয়ারশ কনভেনশন অনুযায়ী, যা অনেক কম।
সারা বিশ্বে এভিয়েশন খাতের সেফটি ও সিকিউরিটি’র (ডেথ, ইনজুরি, ডিলে, ড্যামেজ, লস) ক্ষেত্রে ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশনের (আইকাও) মন্ট্রিল কনভেনশন ৯৯ কার্যকর অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। আইকাও’র সদস্য রাষ্ট্রসমূহকে এ কনভেনশন রেটিফেকশনে উদ্বুদ্ধ করতে কাজ করছে আইএটিএ।
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশ ইতোমধ্যে মন্ট্রিল কনভেনশনে স্বাক্ষর করেছে। এর রেটিফিকেশন প্রক্রিয়া আইন মন্ত্রণালয়ে ভেটিংয়ের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে।
তিনি এয়ার সেফটি ও সিকিউরিটির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের গৃহীত পদক্ষেপসমূহ তুলে ধরে বলেন, সম্প্রতি আইকাও’র ইন্সপেকশনে বাংলাদেশ ৭৭ দশমিক ৪৭ নম্বর অর্জন করেছে যা এ অঞ্চলে সর্বোচ্চ।
মন্ত্রী হযরত শাহজালাল (রহ:) আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ১ নম্বর ক্যাটাগরিতে উন্নীত হওয়ার ক্ষেত্রে আইএটিএ’র সহযোগিতা কামনা করেন।
এ সময় আএটিএ’র রিজিওনাল ম্যানেজার আজহার আজহারি, এভিয়েশন সলিউশন ম্যানেজার পারভেজ এন ইব্রাহিম উপস্থিত ছিলেন।

image_printPrint