সমতা আনার লক্ষ্য নিয়ে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নামছে বাংলাদেশ

46
image_printPrint

ঢাকা, ৩ মে, ২০১৮ (বাসস) : ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সিরিজে প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ১০৬ রানের বড় ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল। এ পরাজয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে পিছিয়ে রুমানা-ফারজানারা। তাই দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে সিরিজে সমতা আনার লক্ষ্য নিয়ে আগামীকাল আবারো দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ।
ওয়ানডে সিরিজের আগে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে দাপুটে জয় পেয়েছিলো বাংলাদেশ। অধিনায়ক রুমানা আহমেদের অপরাজিত ১৩৬ ও ফারজানা হকের অপরাজিত ১০২ রানে সুবাদে নর্থ ওয়েস্টকে ৯০ রানে হারায় বাংলাদেশ।
যে কারণে বেশ আত্মবিশ্বাসী হয়েই দক্ষিণ আফ্রিকা বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শুরু করে বাংলাদেশ। কিন্তু প্রথম ম্যাচে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি সফরকারীরা। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় হার মানতে হয় বাংলাদেশকে।
গতকাল পচেফস্ট্রটে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। দলের ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৭০ রান করে প্রোটিয়ারা।
ট্রাইয়নের ৪২ বলে ৬৫, লি’র ৬৪ বলে ৫৪ ও নিকার্কের ৫২ বলে ৪৪ রান দক্ষিণ আফ্রিকাকে বড় সংগ্রহ এনে দেয়। বাংলাদেশের জাহানারা আলম, নাহিদা আক্তার ও ফাহিমা খাতুন ২টি করে উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট শিকার করেছেন সালমা খাতুন ও রুমানা আহমেদ।
দক্ষিণ আফ্রিকার ছুঁেড় দেয়া ২৭২ রানের টার্গেটে দলীয় ৫ রানেই প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ১ রান করে ফিরেন মুরশিদা খাতুন। এরপর ৬৩ রানের জুটি গড়ে দলকে খেলায় ফেরান আরেক ওপেনার সানজিদা ইসলাম ও ফারজানা হক। নামের পাশে ৩৫ রান রেখে ফিরে যান সানজিদা।
সানজিদার উইকেট পতনের পরই তাসের ঘরের মতো ভেঙ্গে পড়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইন-আপ। ৪৪ রানের ব্যবধানে পরের ৭ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ফলে ৯ উইকেটে ১১২ রানে পরিণত হয় তারা। এতে দ্রুতই গুটিয়ে যাবার শংকায় পড়েছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু সেটি হতে দেননি ফারজানা ও পান্না ঘোষ।
বড় ব্যবধান থেকে রক্ষা করলেও, দলকে পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষা করতে পারেননি ফারজানা ও পান্না। দশম ও শেষ উইকেটে ৫২ রানের জুটি গড়ে দলের স্কোর ১৬৪ রানে নিয়ে যান তারা।
২৩ রান করে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে পান্না আউট হলেও ১৪৬ বলে ৬৯ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন ফারজানা। তার ইনিংসে ৫টি চার ছিলো।
প্রথম ম্যাচে হারটা বাজেভাবে হলেও ঘুরে দাঁড়ানোর সর্বাত্মক চেষ্টাই করবে বাংলাদেশ। তাই দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে সিরিজে সমতা আনাই প্রধান লক্ষ্য তাদের।
সিরিজের পরের তিনটি ওয়ানডে হবে- ৯, ১১ ও ১৪ মে।