বিআইবিএমের গবেষণা কর্মশালা : তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক ব্যাংকিংয়ের সম্ভাব্য মানি লন্ডারিং ঠেকানোর তাগিদ

173

ঢাকা, ১০ অক্টোবর, ২০১৮ (বাসস) : তথ্য প্রযুক্তি ভিত্তিক ব্যাংকিংয়ের সম্ভাব্য মানি লন্ডারিং ঠেকাতে সচেতনতা বাড়াতে হবে।এ লক্ষ্যে ব্যাংকার, কেন্দ্রিয় ব্যাংক এবং মোবাইল অপারেটরদের একযোগে কাজ করার বিকল্প নেই। একইসাথে বিশ্বব্যাপী তথ্য প্রযুক্তি ব্যবস্থায় যে ঝুঁকি তৈরি হয়েছে তার থেকে শিক্ষা নিয়ে জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
বাংলাদেশ ইনিস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমন অভিমত তুলে ধরা হয়েছে।
বুধবার রাজধানীর মিরপুরে বিআইবিএম অডিটোরিয়ামে‘মানিলন্ডারিং ভালনারেবিলিটিস ইন নিউ পেমেন্ট সিস্টেমস: বাংলাদেশ কনটেক্সট’ শীর্ষক কর্মশালায় গবেষণা প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হয়।
কর্মশালায় গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন বিআইবিএমের অধ্যাপক এবং পরিচালক (ট্রেনিং) ড.শাহ মো. আহসান হাবীবের নেতৃত্বে ৮ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।
বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড.তৌফিক আহমদ চৌধূরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিআইবিএমের চেয়ার প্রফেসর ড. বরকত-এ-খোদা,বিআইবিএমের সুপারনিউমারারি অধ্যাপক হেলাল আহমদ চৌধুরী ও ইয়াছিন আলি,ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ফারুক মাঈনুদ্দিন আহমেদ, সাউথ ইস্ট ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস. এম মাঈনুদ্দিন চৌধুরী,আইপে সিস্টেম লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাকারিয়া স্বপন,এনবিআরের প্রথম সচিব সৈয়দ মুশফিকুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
তৌফিক আহমদ চৌধূরী ব্যাংকিং কার্যক্রমে মানিলন্ডারিং ঠেকাতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর সমন্বয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
অধ্যাপক ড. বরকত-এ-খোদা বলেন, মানিলন্ডারিং প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি ও জনশক্তি নেই। এদিকে নজর দিয়ে ব্যাংকারদের দক্ষতা বাড়াতে হবে।
হেলাল আহমদ চৌধুরী বলেন, পুরো ব্যাংকিং ব্যবস্থা আইটি নির্ভর হয়ে যাচ্ছে।এ কারণে শুধু আইটি অফিসারদের নয় পুরো ব্যাংকিং খাতের কর্মীদের আইটি বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা থাকতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংক আইটিতে অনেক এগিয়ে বলে অন্য ব্যাংক তার সাথে তাল মেলাতে হিমশিম খাচ্ছে।
ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ফারুক মাঈনুদ্দিন আহমেদ বলেন, গ্রাহক এবং ব্যাংকার সব পর্যায়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। বিশেষ করে এজেন্টদের সচেতনতা জরুরী। অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেমে গতি বাড়লেও নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা চালু হয়নি। এটা রোধে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দোহাই দিলে হবে না সচেতনতা বাড়াতে হবে।
সৈয়দ মুশফিকুর রহমান এনবিআরসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে নতুন প্রযুক্তি গ্রহণের বিষয়ে আরো সচেতনা ও সচেষ্ট হওয়ার পরামর্শ দেন।

image_printPrint