‘বিবিআইএন মোটর ভেহিক্যাল অ্যাগ্রিমেন্টটি কার্যকরে গুরুত্বারোপ

44

রংপুর, ১০ অক্টোবর, ২০১৮ (বাসস) : রংপুর চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রি (আরসিসিআই) বোর্ড রুমে বুধবার অনষ্ঠিত এক সভায় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ‘বিবিআইএন মোটর ভেহিক্যাল অ্যাগ্রিমেন্টটি (এমভিএ)’ কার্যকর করার মধ্য দিয়ে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য এবং পর্যটন খাতের সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।
ঢাকাস্থ বেসরকারি গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠান ‘উন্নয়ন সমন্বয়’ এবং আরসিসিআই- এর যৌথ উদ্যোগে ‘‘বাংলাদেশ-ভুটান-ভারত-নেপাল (বিবিআইনএন) এর মধ্যে মটরযান চলাচল সহজিকরণ’’ শীর্ষক সচেতনতা ও দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক এ সভা আয়োজন করা হয়।
রংপুর চেম্বারের সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটুর সভাপতিত্বে সভাটি যৌথভাবে সঞ্চালনা করেন ‘উন্নয়ন সমন্বয়’ এর সিনিয়র রিসার্চ এসোসিয়েট ড. মোঃ মাহবুব হাসান ও রিসার্চ অফিসার আসির ইন তিসার।
সভায় বক্তব্য রাখেন রংপুর চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোজতোবা হোসেন রিপন, রংপুর চেম্বারের সাবেক পরিচালক ও এফবিসিসিআই এর পরিচালক মোঃ মোছাদ্দেক হোসেন বাবলু, রংপুর চেম্বারের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, সনিক প্রাইম গ্রুপের ম্যানেজার (এক্সপোর্ট) এমদাদুল হক, প্রাণ আরএফএল-এর রংপুর রিজিয়নের ম্যানেজার মাহবুব হোসেন, বিশিষ্ট আমদানি-রপ্তানিকারক মোঃ মগরব আলী ও মোঃ জাকির সাদেক সওদাগর, রংপুর চেম্বারের পরিচালক মোঃ শাহজাহান বাবু, প্রণয় বণিক ও মোঃ হাবিবুর রহমান রাজা, রংপুর জেলা মটর মালিক সমিতির জয়েন্ট সেক্রেটারি রেজাউল ইসলাম রাজু।
সভায় বক্তাগন বাংলাদেশ-ভূটান-ভারত-নেপাল এ চারটি প্রতিবেশী দেশের মধ্যে আঞ্চলিক ব্যবসা-বাণিজ্য, পরিবহণ ও ট্রানজিট ব্যবস্থা সহজ করার লক্ষ্যে লালমনিরহাটের বুড়িমারি ও পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে চট্টগ্রাম বা মংলা সমুদ্র বন্দর পর্যন্ত মহাসড়কটি ছয় লেনে উন্নীতকরণ, পণ্য আমদানি ও রপ্তানি কার্যক্রম বৃদ্ধির লক্ষ্যে উক্ত স্থলবন্দরদ্বয়ে ট্রানশিপমেন্ট ইয়ার্ডের সম্প্রসারণ, পণ্যের মান নির্ধারণ, ছাড়পত্র, পরীক্ষা-নিরীক্ষা সমস্যার দ্রুত সমাধানে স্থলবন্দর সংলগ্ন স্থানে চর্তুদেশীয় টেস্টিং ল্যাব স্থাপন, রপ্তানি উৎসাহিত ও সহজ করতে ডকুমেন্টের সংখ্যা কমানো, সিঙ্গেল উইন্ডো সার্ভিস, অন-লাইন ডকুমেন্ট জমা ও নন-ট্যারিফ বাধা দুর করা, গাড়িচালকদের ভাষাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে পদক্ষেপ গ্রহণ, বিবিআইএনভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে ব্যাংকিং সমস্যার নিরসণ, চর্তুদেশীয় মটরযান চলাচলে যৌক্তিক হারে টোল আদায়, কাস্টমস অফিসগুলোতে সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ ও উচ্চগতির ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিতকরণ, মালামাল লোড-আনলোড সহজিকরণ, ট্রাক-বাস মালিক, সিএন্ডএফ এজেন্ট ও শ্রমিক সংগঠনগুলোর সমন্বয় সাধন, পণ্য আমদানি ও রপ্তানির ক্ষেত্রে বিবিআইএনভূক্ত দেশগুলোর মধ্যে এইচএসএস কোডের সমস্যা নিরসন, চর্তুদেশীয় রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা চালুকরণ ও বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বয়নহীনতা দূর করার আহ্বান জানান।
সভাপতির বক্তব্যে রংপুর চেম্বারের সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু বলেন, চারদেশের মধ্যে যাত্রী, ব্যক্তিগত ও পণ্যবাহী যান চলাচল নিয়ন্ত্রণের জন্য ‘বিবিআইএন মোটর ভেহিক্যাল অ্যাগ্রিমেন্টটি কার্যকর হলে সংশ্লিষ্ট দেশের মধ্যে আমদানি ও রপ্তানি বাণিজ্য বহুগুণে বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি পিছিয়ে পড়া রংপুর অঞ্চলের পর্যটন খাতও সমৃদ্ধ হবে। তিনি রংপুর অঞ্চলের স্থলবন্দরগুলো থেকে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি রাজস্ব আদায় হওয়ায় বন্দরগুলোর পর্যাপ্ত উন্নয়নে যথাযথ উদ্যোগ ও পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

image_printPrint