‘ঐতিহাসিক বৈঠক’ শান্তির নতুন যুগের সূচনা করেছে : উ.কোরিয়া

117

সিউল, ২৮ এপ্রিল, ২০১৮ (বাসস ডেস্ক): উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের মধ্যে আন্ত:কোরীয় সম্মেলন ছিল একটি ঐতিহাসিক বৈঠক যা নতুন যুগ শুরুর পথ সুগম করেছে। শনিবার পিয়ংইয়ংয়ের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম একথা জানিয়েছে।
উত্তর কোরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা কেসিএনএ জানায়, এটি একটি ঐতিহাসিক বৈঠক ছিল যা জাতীয় ঐক্য, শান্তি ও সমৃদ্ধির নতুন যুগের সূচনা করেছে।
সম্মেলনের ঘোষণা পত্রে দুই নেতা কোরীয় উপদ্বীপে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ সম্পন্ন করার মাধ্যমে অভিন্ন উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের কথা নিশ্চিত করেন।
বছরের পর বছর ধরে পিয়ংইয়ং জোর দিয়ে বলে আসছে যে তারা কখনো তাদের পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি পরিত্যাগ করবে না। এ ব্যাপারে পিয়ংইয়ংয়ের যুক্তি হচ্ছে সম্ভাব্য মার্কিন আগ্রাসনের হাত থেকে নিজের দেশকে রক্ষায় তাদের পারমাণবিক অস্ত্রের প্রয়োজন রয়েছে।
তবে সিউল জানিয়েছে, দেশের নিরাপত্তা নিশ্চয়তার বিনিময়ে উত্তর কোরিয়া এ ব্যাপারে আলোচনার প্রস্তাব দেয়। যদিও কিম শুক্রবারের বহুল প্রত্যাশিত সম্মেলনের ব্যাপারে সরাসরি কিছু বলেননি।
কোরীয় উপদ্বীপকে বিভক্ত করা সামরিক সীমান্ত লাইন অতিক্রম করায় কিম হলেন উত্তর কোরিয়ার প্রথম নেতা যিনি কোরীয় যুদ্ধের অবসানের পর দক্ষিণ কোরিয়ার মাটিতে পা রাখলেন। ১৯৫৩ সালে কোরীয় যুদ্ধের অবসান ঘটে।

image_printPrint