বাংলাদেশ রপ্তানি আয়সহ বিভিন্ন সূচকে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে : বাণিজ্যমন্ত্রী

154

ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ রপ্তানি আয়, বৈদেশিক মূদ্রা রিজার্ভসহ বিভিন্ন সূচকে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে।
তিনি বলেন, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে অভিযাত্রার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ একইসাথে প্রয়োজনীয় ৩টি শর্ত পুরণ করেছে, যা বেশিরভাগ দেশই করতে পারেনি। এসব সাফল্যের কারণে বাংলাদেশ বিশ্বের অনেক দেশের জন্যই এখন রোল মডেল বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।
বাণিজ্যমন্ত্রী আজ রোববার রাজধানীর স্থানীয় এক হোটেলে ‘বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে অভিযাত্রা পরবর্তী নীতি কাঠামো: ব্যবসা-বাণিজ্য প্রেক্ষিত’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান।
‘ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) ও জার্মান ভিত্তিক ফ্রেডরিখ নুউম্যান ফাউন্ডেশন (এফএনএফ) যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
এতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের এসডিজি বিষয়ক সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ ও এফবিসিসিআই সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) বক্তব্য রাখেন।
এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সংগঠনের পরিচালকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও প্যানেল আলোচক হিসেবে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ডেভেলেপমেন্ট স্টাডিজ (বিআইডিএস)-এর সিনিয়র রিসার্চ ফেলো ড. নাজনীন আহমেদ এবং ডিনেট-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. অনন্য রায়হান অংশ নেন।
এতে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপতি ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দও অংশগ্রহণ করেন।
অনুষ্ঠানে আবুল কালাম আজাদ বলেন, সুযোগ্য নেতৃত্ব এবং প্রাকৃতিক সম্পদের স্বয়ংসম্পূর্ণতা বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার পথে একটি বড় সমর্থন।
মূল প্রবন্ধে ড. আতিউর রহমান বলেন, গত প্রায় ১ দশক ধরে ধারাবাহিকভাবে ৬ শতাংশের ওপর জাতীয় প্রবৃদ্ধি অর্জন, মাথাপিছু আয় উল্লেখযোগ্য হারে উনীœত হওয়া এবং প্রবাসী আয়ে অভূতপূর্ব সাফল্য বাংলাদেশকে উন্নয়শীল দেশে উত্তরণের পথে বিশেষ ভূমিকা রেখেছে। যথাযথ পরিকল্পনার মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচনে সাফল্যও দেশের অগ্রযাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে।
এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, আন্তর্জাতিক বিশ্ব এখন বাংলাদেশের সম্ভাবনা এবং অগ্রযাত্রাকে গুরুত্বের সাথে মূল্যায়ন করছে।

image_printPrint