শিশু ধর্ষণকারীর মৃত্যুদন্ডের নির্বাহী আদেশে ভারতের রাষ্ট্রপতির সম্মতি

75

নয়াদিল্লী, ২২ এপ্রিল, ২০১৮ (বাসস/সিনহুয়া) : ভারতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ রোববার এক জরুরি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন, যার বলে আদালত ১২ বছরের কম বয়সী শিশু ধর্ষণকারীর সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড প্রদান করতে পারবে।
সরকারি সূত্র জানায়, শনিবার দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এই জরুরি নির্বাহী আদেশ অনুমোদন করে।
সূত্র জানায়, ‘রাষ্ট্রপতির অনুমোদনের সঙ্গে-সঙ্গে ভারতীয় দন্ডবিধি (আইপিসি)’-তে যৌন অপরাধ থেকে শিশু সুরক্ষা আইন সংশোধিত আকারে পাস হলো।
নতুন আইন অনুযায়ী, ধর্ষণের মামলার বিচারের জন্য নতুন করে দ্রুত বিচার আদালত স্থাপন করা হবে।
আদেশ অনুযায়ী, ১২ বছরের কম বয়সীদের ধর্ষককারীর শাস্তি হবে মৃত্যুদন্ড, আর ১৬ বছরের কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণের ক্ষেত্রে ধর্ষককারীর সর্বনিম্ন শাস্তি ১০ বছর থেকে বাড়িয়ে ২০ বছর কারাদন্ডের বিধান করা হয়েছে।
ধর্ষণের ন্যূনতম শাস্তি সাত বছরের কারাদন্ড থেকে বাড়িয়ে ১০ বছর অথবা যাবজ্জীবন করা হয়েছে।
নতুন আইনে ধর্ষণের মামলা বিচারের জন্যও দ্রুত তদন্ত সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে।
‘ধর্ষণের সব মামলার ক্ষেত্রে তদন্তের সময়সীমাও নির্ধারণ করা হয়েছে- যা দুই মাসের মধ্যে বাধ্যতামূলকভাবে সম্পন্ন করতে হবে বলা হয়েছে।
‘ধর্ষণের ক্ষেত্রে আপীল নিষ্পত্তির জন্য ছয়মাসের সময় সীমাও নির্ধারিত করে দেয়া হয়েছে।
নতুন আইনে ১৬ বছরের কম বয়সী মেয়েকে ধর্ষণ বা গণধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত ব্যক্তির অগ্রিম জামিন জন্য কোন ব্যবস্থা থাকবে না।’
সম্প্রতি ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের কথুয়া জেলায় আট বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগ ওঠার পর ধর্ষণকারীদের কঠোর শাস্তির দাবিতে উত্তাল হয়ে ওঠে ভারত।

image_printPrint