অবকাঠামোগত উন্নয়ন, শিক্ষা ও চিকিৎসাক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাপক অগ্রগতি সাধন করেছে : ইউজিসি চেয়ারম্যান

42
image_printPrint

ঢাকা, ২২ এপ্রিল, ২০১৮ (বাসস) : বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান বলেছেন, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, শিক্ষা ও চিকিৎসাক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাপক অগ্রগতি সাধন করেছে।
তিনি দেশের চিকিৎসাখাতে সেবার মান বাড়ানোর জন্য মেডিকেল প্রফেশনালদের সক্ষমতা বাড়ানো এবং দক্ষ মেডিকেল টেকনিশিয়ান তৈরির ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
মেডিকেল প্রফেশনালদের মধ্যে মেডিকেল ই-রিসোর্সেস ব্যবহার সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ইউজিসিতে আজ দিনব্যাপী আয়োজিত এক কর্মশালার উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথি’র বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।
ইউজিসি ডিজিটাল লাইব্রেরি (ইউডিএল) ও ওল্টার্স ক্লুয়ার যৌথভাবে এই কর্মশালার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. মো. আখতার হোসেন।
এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর এবিএম আবদুল্লাহ, বিশ^ব্যাংকের সিনিয়র অপারেশনস অফিসার (বাংলাদেশ) ড. মো. মোখলেছুর রহমান এবং ওল্টার্স ক্লুয়ার ভাইস- প্রেসিডেন্ট রাজেশ কে সিং। এ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ইউজিসি সচিব (ভারপ্রাপ্ত)আবদুর রেজ্জাক ।
চিকিৎসা বিজ্ঞানে গবেষণা অত্যন্ত ব্যয়বহুল উল্লেখ করে ইউজিসি চেয়ারম্যান স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা মোকাবেলায় মেডিকেল প্রফেশনালদের প্রযুক্তিগত গবেষণা কর্মকা- পরিচালনা এবং কৌশল উদ্ভাবন করার আহবান জানান।
তিনি মেডিকেল প্রফেশনালদের মধ্যে যোগাযোগ বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন এবং মেডিকেল শিক্ষায় গুণগত পরিবর্তন নিয়ে আসার জন্য আহবান জানান।
তিনি বলেন মেডিকেল ই-রিসোর্সেস সহজে ব্যবহারের জন্য ইউজিসি অভিন্ন একটি প্লাটফর্ম তৈরি নিয়ে কাজ করছে।
প্রফেসর আখতার হোসেন বলেন, ইউজিসি ডিজিটাল লাইব্রেরির মাধ্যমে দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীরা ৩,৫০০ এর অধিক গুণগত মানসম্পন্ন ই-রিসোর্স ব্যবহার করছে। মেডিকেল কলেজ ও মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয় পর্যায়ে ই-রিসোর্স ব্যবহারের ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন ই-রিসোর্স ব্যবহার করে গবেষণা কর্মকা- পরিচালনা করলে দেশের স্বাস্থ্য খাত এগিয়ে যাবে।
অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লা ও ইউজিসি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
এছাড়া বিভিন্ন মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এবং বিভিন্ন মেডিকেল সংক্রান্ত গবেষণা প্রতিষ্ঠানের গবেষকগণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।