অসি টেস্ট দলে পাঁচ নতুন মুখ, বাদ পড়লেন ম্যাক্সওয়েল

53

সিডনি, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : চলতি বছরের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারীর পর প্রথম টেস্ট দল ঘোষনা করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। পাকিস্তানের বিপক্ষে আগামী মাসে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিতব্য দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে পরিবর্র্তনের ধারাবাহিকতায় অস্ট্রেলিয়া দলে ডাক পেয়েছেন পাঁচজন নতুন ক্রিকেটার। সেই সাথে টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েছেন ব্যাটিং অল-রাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।
সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরুন ব্যানক্রফটের বল টেম্পরিং ঘটনায় অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের ইমেজ বহুলাংশেই নষ্ট হয়েছে, যার থেকে এখনো তারা বেরিয়ে আসতে পারেনি। পুরো ঘটনায় বিশ্ব ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ানদের নিয়ে যে সমালোচনা হয়েছে তা দেশটির ক্রিকেট ইতিহাসে এক কলঙ্কজনক অধ্যায়ের জন্ম দিয়েছে। তবে দীর্ঘদিন পরে প্রথম টেস্ট দল ঘোষনা করতে গিয়ে অস্ট্রেলিয়ান নির্বাচকরা যেন নতুনদের ওপরই আস্থা রাখার ইঙ্গিত দিলেন।
এই টেস্টে ইনজুরির কারনে খেলতে পারছেনা না দুই ফাস্ট বোলার জোস হ্যাজেলউড ও প্যাট কামিন্স। যে কারনে সাম্প্রতীক সময়ে সম্ভবত সবচেয়ে দূর্বল টেস্ট স্কোয়াড নিয়েই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া।
প্রথমবারের মত টেস্ট দলে ডাক পাওয়া পাঁচ নতুন খেলোয়াড় হলেন কুইন্সল্যান্ডের তিন খেলোয়াড় মাইকেল নেসার, ব্রেন্ডান ডগেট ও মারনুস লাবুসচাগনে, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ান ট্রেভিস হেড ও ভিক্টোরিয়ার এ্যারন ফিঞ্চ।
এ সম্পর্কে জাতীয় নির্বাচক ট্রেভর হনস বলেছেন, ‘এবারের টেস্ট দলটিতে ব্যপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। দলের বেশ কয়েকজন তারকা খেলোয়াড়ের অনুপস্থিতিই এর কারন। আমরা বিশ্বাস করি নতুন দলটি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সমর্থ হবে এবং পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে তারা নিজেদের প্রমান করতে পারবে। দলটিতে অভিজ্ঞতা ও তারুন্যের সংমিশ্রন রয়েছে। এখানে যেমন টেস্ট ও প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিজ্ঞদের জায়গা দেয়া হয়েছে ঠিক সেভাবেই যারা টেস্ট অঙ্গনে নিজেদের আত্মবিশ্বাস প্রমানে প্রস্তুত তাদেরকেও ডাকা হয়েছে।’
স্মিথ, ওয়ার্নার ও ব্যানক্রফটের অনুপস্থিতিতে টপ অর্ডারে তিনটি জায়গা খালি হয়ে গিয়েছিল। এছাড়া গত বছর এ্যাশেজ সিরিজকে সামনে রেখে ওপেনার ম্যাট রেনশ’কে দল থেকে বাদ দেয়া হয়েছিল। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের শেষ টেস্টে তিনি দলে ফিরেছিলেন।
টি২০ অধিনায়ক ফ্রিঞ্চকে প্রথমবারের মত টেস্ট দলে ডাকা হয়েছে। রেনশ’র সাথে হয়তবা তিনিই ইনিংস সূচনা করবেন। এদিকে নির্বাচকদের জন্য শন মার্শের সুস্থতা স্বস্তি এনে দিয়েছে। কাঁধের ইনজুরির কারনে তিনি কাউন্টি ক্রিকেট থেকে জুলাইয়ে দেশে ফিরে এসেছিলেন। মিডল অর্ডারে উসমান খাজা ও অল-রাউন্ডার মিশেল মার্শের সাথে হেড কিংবা লাবুসচাগনের মধ্যে যেকোন একজন খেলবেন।
ভারতের বিপক্ষে সম্প্রতী অস্ট্রেলিয়া এ’ দলের হয়ে বাজে পারফর্মেন্সের কারনে পিটার হ্যান্ডসকম্ব বাদ পড়েছেন। অভিজ্ঞ মিশেল স্টার্ক পেস বোলিংয়ে নেতৃত্ব দিবেন। তার সাথে দলে পুনরায় ডাকা হয়েছে পিটার সিডলকে। নতুন বলে স্টার্কের জুটি হিসেবে নেসার কিংবা ডগেটের কোন একজনের খেলার সম্ভাবনা রয়েছে। স্পিন বোলিংয়ে যথারীতি আছেন ন্যাথান লিঁও, জন হল্যান্ড ও বাঁ-হাতি এ্যাস্টন আগার। উইকেটের পিছনে আছেন অধিনায়ক টিম পেইন।
আগামী ৭ অক্টোবর দুবাইয়ে প্রথম টেস্ট শুরু হবে। ১৬ অক্টোবর থেকে আবু ধাবীতে গড়াবে দ্বিতীয় টেস্ট।
অস্ট্রেলিয়া স্কোয়াড : টিম পেইন (অধিনায়ক), এ্যাস্টন আগার, ব্রেন্ডন ডগেট, এ্যারন ফিঞ্চ, ট্রেভিস হেড, জন হল্যান্ড, উসমান খাজা, মারনুস লাবুসচাগনে, ন্যাথান লিঁও, মিচেল মার্শ, শন মার্শ, মাইকেল নেসার, ম্যাথু রেনশ, পিটার সিডল, মিচেল স্টার্ক।

image_printPrint