বঙ্গবন্ধুর ওপর লেখা সচিত্র সিরিজ উপন্যাসের ৫ম অংশ বাজারে ব্যাপক সাড়া মিলেছে

726

ঢাকা, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর লেখা সচিত্র সিরিজ উপন্যাসের ৫ম অংশ বাজারে ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেছে। দ্বিতীয় মহাযুদ্ধের ক্ষতিকর প্রভাবের ফলে মানুষের ভোগান্তি লাঘবে একজন তরুণ সাহসী মুজিব কিভাবে উদ্যেগ গ্রহণ করেছিলেন এখানে সে সব বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার বিকেলে গণভবনে এক অনুষ্ঠানে এই বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করতে গিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন, তাঁর সংগ্রাম ও জাতির জন্য ত্যাগ ইত্যাদি তুলে ধরার এই উদ্যোগ প্রজন্মের পর প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুকে নিশ্চিতভাবে বাঁচিয়ে রাখবে।
তিনি বলেন, ‘এইসব উদ্যোগ জাতির জনকের বিরুদ্ধে দেশবাসীর সামনে আনীত মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য বিদুরীত করবে। সত্যের কোন মৃত্যু নেই এবং শেষ পর্যন্ত এই সকল মিথ্যা ষড়যন্ত্র ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়।’
অলাভজনক প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফমেশন (সিআরআই) গণভবনে ‘সিক্রেট ডকুমেন্ট অব ইন্টেলিজেন্স ব্যাঞ্চ অন ফাদার অব দ্যা নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’Ñ এর প্রথম সংস্করণের প্রকাশনা অনুষ্ঠানের পর সচিত্র উপন্যাস ‘মুজিব-৫’ এর এই মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সিআরআই এই বইটি প্রকাশ করেছে।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইমেরিটাস অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ও বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।

মুজিব উপন্যাস সিরিজের পঞ্চম অংশে দেখানো হয়েছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ১৯৪৫ সালে কিভাবে ছাত্রলীগে তাঁর কাঙ্খিত পদ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। এই ছাত্র সংগঠনটিতে ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত কোন নির্বাচন হয়নি। ওই সময়ে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলছিল এবং কিছু কুচক্রী মহল যুদ্ধকে পুঁজি করে কালোবাজারী করছিল।
পরিস্থিতি আরও গোলাটে করতে তৎকালীন আইনসভার কিছু সদস্য এবং খান বাহাদুরদের মধ্যেকার স্বার্থের দ্বন্ধ ব্রিটিশ গভর্ণরের জন্য ক্ষমতা গ্রহণের পথ সহজ করে দেয়।
এই টালমাটাল পরিস্থিতি তরুন মুজিবকে বিচলিত এবং এর প্রেক্ষিতে তাঁকে ভিন্ন কিছু করতে উৎসাহিত করে।
আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা জানানো হয়।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উপর নতুন প্রকাশিত সচিত্র উপন্যাস সারাদেশে পাওয়া যাবে। আগ্রহী পাঠকরা ০১৮২৬০১৮৬৬৫ নম্বরে ফোন করে অথবা ঢ়ঁনষরপধঃরড়হ@পৎর.ড়ৎম, সঁলরনমহ@পযধৎপযধনড়ড়শং.পড়স ই-মেইল ঠিকানায় অর্ডার দিতে পারবেন।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহন করেন। তাঁর নেতৃত্বে এক দীর্ঘ সংগ্রামের মধ্য দিয়ে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র হিসাবে আত্মপ্রকাশ করে।
কারাগারে বসে লেখা বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র উপর ভিত্তি করে পুরো সচিত্র উপন্যাসটি লেখা হয়েছে। সিআরআই সূত্রে জানা গেছে, শিশু-কিশোরদের বঙ্গবন্ধু ও দেশের ইতিহাস সম্পর্কে জানানোর লক্ষ্যে সচিত্র উপন্যাস সিরিজের ১২টি খন্ডে তা তুলে ধরা হবে।
সিআরআই জানিয়েছে, এই সিরিজের আরও ৭টি পর্ব প্রকাশের ব্যাপারে তাদের পরিকল্পনা রয়েছে।
এর আগে তরুন শেখ মুজিবের দিল্লী ভ্রমনের উপর চতুর্থ খন্ড প্রকাশিত হয়েছে। কিছু ঐতিহাসিক স্থাপনা দেখার পর তিনি এবং তাঁর দুইজন সঙ্গী দেখেন তাঁদের কাছে থাকা প্রায় সব টাকাই খরচ করে ফেলেছেন যে, ফিরে আসার টিকেট কেনার টাকাও খরচ করে ফেলেছেন।
এর আগে প্রকাশিত ‘মুজিব-৩’ অংশে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধুর জীবনী তুলে ধরা হয়েছে। ওই সময় তিনি তাঁর এলাকার ক্ষুধার্ত জনগণের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করেন।
‘মুজিব-২’ অংশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক উত্থান, তাঁর রাজনৈতিক আদর্শিক নেতা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর সাথে সম্পর্ক ক্রমেই উষ্ণতর হয়ে ওঠা এবং তরুণ শেখ মুজিব ও তাঁর পিতার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।
‘মুজিব-১’ অংশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শৈশব এবং রাজনীতিতে তাঁর সংশ্লিষ্টতা তুলে ধরা হয়েছে।

image_printPrint