উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারও নৌকা মার্কায় ভোট চেয়েছেন ওবায়দুল কাদের

6506
image_printPrint

ঢাকা, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকে আবারও বিজযী করতে দেশের মানুষকে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার আহবান জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, জনপ্রিয়তা যাচাই করে আগামী জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হবে। জনগণ যাকে ভালবাসে, জনগণ যার পক্ষে আছে-এমন নেতা মনোনয়ন পাবেন।
বিএনপির অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ারও আহবান জানান কাদের। তিনি বলেন ,তাদের একমাত্র পুঁজি গুজব সন্ত্রাস। গুজব ছড়িয়ে তারা জনঘনকে বিভ্রান্ত করছে।
সেতুমন্ত্রী আজ শনিবার দুপুরে ট্রেনে ঢাকা থেকে উত্তরাঞ্চলে সাংগঠনিক সফরের অংশ হিসেবে আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিভিন্ন রেলস্টেশনে অনুষ্ঠিত পথসভায় এ আহবান জানান।
আজ সকালে ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে নীলসাগর আন্ত:নগর রেলযোগে রওনা হয়ে নীলফামারী অভিমুখে এ রেলযাত্রা কর্মসূচী শুরু হয়।
বাসস’র টাঙ্গাইল প্রতিনিধি জানান, সকাল প্রায় ১১টায় ঢাকা থেকে উত্তরাঞ্চলে সাংগঠনিক সফরের ট্রেনটি প্রথম টাঙ্গাইলের ঘারিন্দা রেলস্টেশনে পৌঁছে।
এখানে আয়োজিত পথসভায় ওবায়দুল কাদের দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, অপকর্ম ও দলের মধ্যে বিশৃঙ্খলা করলে, ঘরের মধ্যে ঘর এবং মশারির মধ্যে মশারি টাঙ্গানো হলে শাস্তি আছে।
কাদের বলেন ‘আপনারা বিএনপি’র গুজব সর্ম্পকে সর্তক থাকবেন। বিএনপি ২০১৪ সালের মতো সন্ত্রাস, নৈরাজ্যের পায়তারা চালাচ্ছে। বিএনপি-জামায়াতের আন্দোলনের নামে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য প্রতিরোধ করা হবে’।
এ সময় তিনি দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, জনগণ আর বিএনপি’র দুঃশাসনে যেতে চায় না। দেশে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। বর্তমান সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়নে আশ্বস্ত জনগণ। তাতে তারা আবারো নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনবে। এবারও নৌকার বিজয় হবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।
টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান খান ফারুকের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানকসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।
পাবনা থেকে বাসস’র সংবাদদাতা জানান, দুপুর ১টায় পাবনার মুলাডুলি স্টেশনে সফরকারি নেতাদের নিয়ে নীলসাগর আন্ত:নগর এসে পৌছাঁয়।
এখানে আয়োজিত পথসভায় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকে আবারও বিজযী করতে দেশের মানুষকে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার আহবান জানান।
দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার উপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন জনগণের মধ্যে প্রচার করতে হবে। যারা জনগণের সাথে দুর্ব্যবহার করেন, তারা মনোনয়ন পাবেন না। ব্যানার-ফেস্টুন বিলবোর্ডে মনোনয়ন হবে না। জনপ্রিয়তা দেখেই মনোনয়ন দেওয়া হবে।
ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, আন্দোলন করতে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি আবার নাশকতা ও আগুন সন্ত্রাসের পরিকল্পনা করছে। তারা সব সময় দেশকে অস্থিরতার মধ্যে রাখতে চায়। জনসমর্থন হারিয়ে তারা এখন দেশকে অস্থিতিশীল করার পরিকল্পনা করছে। তাদের সকল ষড়যন্ত্র বাংলার মানুষ প্রতিহত করবে।
এর আগে ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ এর সভাপতিত্বে ঈশ্বরদী মুলাডুলি পথসভায় সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করেছে। মায়েরা এখন এসএমএসে টাকা পাচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাসী।
নাটোর থেকে বাসস’র সংবাদদাতা জানান, নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস এমপি’র সভাপতিত্বে নাটোর রেলস্টেশনে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।
আজ সকালে ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে নীলসাগর আন্তঃনগর রেলযোগে রওনা হয়ে নীলফামারী অভিমুখী এই রেলযাত্রা কর্মসূচীতে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী দুপুরে নাটোরে পৌঁছেন।
এখানে পথসভায়ও তিনি বলেন, জনপ্রিয়তা যাচাই করে আগামী জাতীয় নির্বাচনে দলের প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে। জনগন যাকে ভালবাসে, জনগন যার পক্ষে আছে-এমন নেতা মনোনয়ন পাবেন। সকলের আমলনামা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আছে জানিয়ে তিনি বলেন, ছয়মাস পর পর রিপোর্ট জমা হচ্ছে। এ পর্যন্ত পাঁচটা রিপোর্ট জমা হয়েছে।
সেতু মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ইতিবাচক ধারার রাজনীতি করে। আর বিএনপি’র নেতিবাচক রাজনীতির কারনে ভোট কমে যাচ্ছে। আগুন সন্ত্রাস, লুটপাট আর দূর্নীতিতে দেশকে পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করার কারনে জনগন বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে।
তিনি বলেন, বিএনপি এমন কোন কাজ করেনি যে, জনগন তাদের ভোট দেবে। পক্ষান্তরে আওয়ামী লীগের ভোট বাড়ছে। আজ চেয়েছিলাম পথসভা, হয়ে গেল জনসভা। জননেত্রী শেখ হাসিনা আসলে হয়ে যেত জনসমুদ্র।
তিনি বলেন, গত দশ বছরে বিএনপি আন্দোলন করতে পারেনি। আগামী দু’মাসেও আন্দোলন করতে পারবেনা। মরা গাঙ্গে জোয়ার আসেনা। খালেদা জিয়ার বিচার হচ্ছে আইন ও আদালতের মাধ্যমে। বিচার কাজে সরকারের করার কিছু নেই।
সফরকালে রেলযাত্রায় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, সাবেক মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, বি এম মোজাম্মেল হক এমপি, আহমদ হোসেন,ও অসীম কুমার উকিল প্রমুখ।
নাটোর ছাড়াও বগুড়া,জয়পুরহাট, দিনাজপুর এবং সবশেষ নীলফামারী রেল স্টেশনগুলোতে পথসভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।