পদ্মার ভাঙ্গনে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ৩ হাজার পরিবার গৃহহীন

84

শরীয়তপুর, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় পদ্মার ভাঙ্গনে সাড়ে তিন হাজার পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়েছে। ইতোমধ্যেই শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠন নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে।
পদ্মার তীরবর্তী নড়িয়া উপজেলার মোক্তারেরচর থেকে শুরেশ^র দরবার শরীফ পর্যন্ত প্রায় চার কিলোমিটার এলাকার অধিবাসীরা পদ্মা নদীর ভাঙ্গনের শিকার হয়েছে। পদ্মার মাত্র ২০ মিটার দূরে ভাঙ্গন ঝুঁকিতে রয়েছে নড়িয়ার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল। ভাঙ্গন আতংকে দিন কাটছে নড়িয়া উপজেলার শত বছরের ঐতিহ্যবাহী মুলফৎগঞ্জ বাজারের পাঁচ শতাধিক ব্যবসায়ীসহ আশপাশের হাজারো পরিবারের।
এদিকে শরীয়তপুরের পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে আপদকালীন ব্যবস্থা হিসেবে ভাঙ্গন মোকাবেলায় নদী-¯্রােতের তীব্রতা কমাতে পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে করে এক লাখ ১০ হাজার জিও ব্যাগ নদীতে ফেলা হচ্ছে। জিও ব্যাগ ফেলার পর গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে ভাঙ্গন কিছুটা কমে এসেছে।
অপরদিকে ভাঙ্গন কবলিত দুর্গতদের তাৎক্ষনিক সহায়তা হিসেবে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের তহবিল থেকে দুর্গত তিন হাজার ৫শ’ পরিবারের মাঝে পরিবার প্রতি ৩০ কেজি করে চাল এবং তিন হাজার ২শ’ পরিবারের মাঝে শুকনো খাবার ৭শ’ বান্ডিল ঢেউটিন এবং নগদ দুই লাখ ১০ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। আরও বরাদ্দের জন্য স্থানীয় প্রশাসন থেকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেয়া হয়েছে বলে নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

image_printPrint