শুরু হলো বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবল টুর্নামেন্ট

127
image_printPrint

বারহাট্টা (নেত্রকোনা), ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮(বাসস) : প্রতিভাবান ফুটবলার খুঁজে বের করার লক্ষ্যে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যাগে সারা দেশে শুরু হলো জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট (অনূর্ধ্ব-১৭)। আজ শনিবার নেত্রোকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে হাজার হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে জাঁকজমকপূর্ণ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হলো আন্তঃইউনিয়ন পর্যায়ের খেলা।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতি থেকে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার, এমপি। নেত্রকোনা জেলাপ্রশাসন ও বারহাট্টা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় এমপি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ আব্দুুল্লাহ, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব মোহাম্মদ মাসুদ করিম, ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি এবং ঢাকাস্থ ব্রাজিল দুতাবাসের কাউন্সেলর মিল্টনডি এফ. কউটিনহ ফিলহ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসান।
প্রতিযোগিতায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ক্লাব ও ফুটবল একাডেমীর অনূর্ধ্ব-১৭ খেলোয়াড়রা অংশ নিচ্ছেন। সারা দেশের ৫ হাজার ৫০০টি দলের হয়ে মোট ১ লাখ ২৫ হাজার ফুটবলার এ টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছেন। এদের মধ্য থেকে ৪০ জন ফুটবলার বাছাই করে তাদেরকে আরো উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।
প্রথম পর্যায়ে উপজেলা সদরে আন্ত:ইউনিয়ন টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা পর্যায়ের অংশগ্রহণকারী সেরা খেলোয়াড়দের নিয়ে গঠিত উপজেলা দল জেলা পর্যায়ে, জেলা দল বিভাগ পর্যায়ে এবং বিভাগীয় দল জাতীয পর্যায়ে অংশ নেবে। চলতি মাসের প্রথম ও দ্বিতীয় সপ্তাহে উপজেলা পর্যায়ে আন্ত:ইউনিয়ন এবং পৌরসভায় আন্ত:ওয়ার্ড খেলা হবে। তৃতীয় সপ্তাহে জেলা পর্যায়ের এবং চতুর্থ সপ্তাহে বিভাগীয় পর্যায়ের খেলা শেষ করে আট বিভাগীয় দল নিয়ে জাতীয় পর্যায়ের খেলা হবে। প্রতিটি পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ দলের জন্য ট্রফি ও আর্থিক পুরস্কারের পাশাপাশি সেরা খেলোয়াড় ও সর্বোচ্চ গোলদাতাকেও পুরস্কৃত করা হবে।
প্রতিযোগিতা সফলভাবে আয়োজনের জন্য জাতীয় পর্যায়ে টুর্নামেন্ট কমিটির পাশাপাশি বিভাগীয় পর্যায়ে কমিশনার, জেলা পর্যায় প্রশাসক ও উপজেলা পর্যায়ে নির্বাহী অফিসারদের নেতৃত্বে কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ ফুটবল ফেডাশেন ও জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধিদের কমিটিতে রাখা হয়েছে।
বাংলাদেশের ফুটবলের স্বর্ণালী দিন ফিরিয়ে আনতে এখন থেকে প্রতি বছর এ টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হবে।
প্রতিযোগিতার জন্য ১৫ কোটি টাকার বাজেট করা হয়েছে। আগামী বছর থেকে অনুরূপ প্রতিযোগিতা মেয়েদের জন্যও আয়োজন করা হবে বলে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
উদ্বোধনী ম্যাচে নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার বাউশিই উনিয়ন ও বারহাট্টা সদর উনিয়ন মুখোমুখি হয়।