বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে রোহিঙ্গা বিষয়ে আলোচনা হতে পারে : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

119

ঢাকা, ২৯ আগস্ট, ২০১৮ (বাসস) : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম আশা করছেন, বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে রোহিঙ্গা বিষয়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা হতে পারে।
তিনি বলেন, ‘অর্থনৈতিক ও কারিগরি সহযোগিতা সংক্রান্ত ফোরাম হিসেবে বিমসটেকে রাজনৈতিক আলোচনার খুব একটা সুযোগ নেই। কিন্তু রোহিঙ্গা বিষয়ে অনানুষ্ঠানিক সেশনে আলোচনা হতে পারে।’
শাহরিয়ার আলম আজ ঢাকায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন।
নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠিতব্য দু’দিনব্যাপী চতুর্থ বিমসটেক (বে অব বেঙ্গল ইনিসিয়েটিভ ফর মাল্টি-সেক্টোরাল টেকনিক্যাল এন্ড ইকনোমিক কো-অপারেশন) শীর্ষ সম্মেলন উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে কাঠমান্ডুতে এ শীর্ষ সম্মেলন শুরু হচ্ছে। নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলি আনুষ্ঠানিকভাবে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন। নেপালের প্রধানমন্ত্রীর স্বাগত বক্তব্য শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মেলনের শুরুতেই বক্তব্য প্রদান করবেন।
চতুর্থ বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘টুওয়ার্ডস এ পিসফুল, প্রসপরাস অ্যান্ড সাসটেইনেবল বে অব বেঙ্গল রিজিয়ন’।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বিমসটেকের সদস্য হিসেবে যদি কোনো রাষ্ট্র রোহিঙ্গা বিষয়ে অনানুষ্ঠানিক সেশনে আলোচনার দাবি উত্থাপন করে তাহলে বাংলাদেশ খুবই খুশি হবে।’
১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংকক ঘোষণার মধ্যদিয়ে উপ-আঞ্চলিক সংগঠন হিসেবে বিমস্টেকের যাত্রা শুরু হয়। বিমসটেকের সদস্য ৭টি রাষ্ট্রের মধ্যে ৫টি রাষ্ট্রই (বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, নেপাল ও শ্রীলংকা) দক্ষিণ এশিয়ার। বাকি দু’টি সদস্য দেশ (মিয়ানমার ও থাইল্যান্ড) দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার।
এ শীর্ষ সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সরকার/রাষ্ট্র প্রধানরা অংশগ্রহণ করবেন। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দু’দিনের সরকারি সফরে আগামীকাল কাঠমান্ডুর উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন।
এই সম্মেলনে অংশগ্রহণের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে বৈঠকরও সম্ভাবনা রয়েছে বলে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী উল্লেখ করেন।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, দু’দিনব্যাপী শীর্ষ সম্মেলনের শেষদিনে (আগামী শুক্রবার) বিমসটেক সদস্য দেশসমূহের রাষ্ট্র/সরকার প্রধানগণের অংশগ্রহণে আয়োজিত অনানুষ্ঠানিক সভার পর রাষ্ট্র/সরকার প্রধানগণের উপস্থিতিতে বিমসটেক অঞ্চলে সহযোগিতা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে দু’টি বিষযে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
তিনি বলেন, রাষ্ট্র/সরকার প্রধানগণ শীর্ষ সম্মেলনের যৌথ ঘোষণা জারি করবেন বলে প্রস্তাবনা রয়েছে। এর পর পরই বিমসটেকের সভাপতির দায়িত্ব নেপালের কাছ থেকে শ্রীলংকার কাছে হস্তান্তর করা হবে।

image_printPrint