পিএসজির শিরোপা রক্ষার মিশনে সবার নজরে নেইমার-এমবাপে জুটি

95

প্যারিস, ১০ আগস্ট ২০১৮ (বাসস/এএফপি) : লিওনেল মেসির ছায়া থেকে বেরিয়ে আসার জন্য নেইমার বার্সেলোনা ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) যোগ দিয়েছে এক বছর আগে। লক্ষ্য ছিল বিশ্বের এক নম্বর তারকার মর্যাদা লাভ করা। তবে আসন্ন মৌসুমে বিশ্ব সেরার এই স্ট্যাটাসটি তাকে হয়তো ভাগাভাগি করতে হবে ফরাসি টিনএজার কিলিয়ান এমবাপের সঙ্গে।
আগামী রোববার প্রাক ডেস প্রিন্সেসে কেইনের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে লীগ ওয়ানের শিরোপা রক্ষার মিশনে নামবে পিএসজি। এ ম্যাচে সবার নজর থাকবে পায়ের ইনজুরির কারণে গত আসরের শেষ তিনমাসে দলের বাইরে কাটানো ব্রাজিলীয় তারকা নেইমারের দিকে।
বিশ্বের সবচেয়ে দামী এ খেলোয়াড় গোটা মৌসুম জুড়ে ছিলেন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। আর সেটি হচ্ছে তার ফ্রান্স ছেড়ে চলে যাওয়ার জল্পনা কল্পনা। গণমাধ্যমের রিপোর্টে বলা হয়েছিল তিনি রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেয়ার জন্য তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। তবে বাস্তবতা হচ্ছে এখনো তিনি পিএসজিতেই আছেন।
গত মাসে ইসএসন ব্রাজিলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে নেইমার বলেন, ‘আমি প্যারিসেই থাকছি। দলটির সঙ্গে আমার একটি চুক্তি রয়েছে। দল ত্যাগের গল্পগুলো সংবাদ মাধ্যমের সৃস্টি। আমি চুক্তিবদ্ধ হয়েছি এবং সাবাই সেটি জানে কেন আমি পিএসজিতে যোগ দিয়েছিলাম। এই ক্লাবের হয়েই আমি শিরোপা জয় করতে চাই। আশা করছি এই মৌসুমটি হবে চমৎকার।’
ইনজুরি কাটিয়ে সময় মতই রাশিয়া বিশ্বকাপে ব্রাজিলের হয়ে মাঠে নেমেছিলেন নেইমার। কিন্তু রেকর্ড সংখ্যক ষষ্ঠবারের মত বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ে ব্রাজিলকে অনুপ্রাতিন করতে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে ২-১ গোলে হেরে বিদায় নেয় পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।
এদিকে বিশ্বকাপে চার গোল করা টিনএজ তারকা এমবাপে টুর্নামেন্টের সেরা তরুণ তারকার পুরস্কার লাভ করেছেন। তার নৈপুণ্যে বিশ্বকাপের শিরোপা জয় করেছে ফ্রান্স। পেলের পর বিশ্বকাপের ইতিহাসে ১৯ বছর বয়সি এই তারকাই সবচেয়ে কম বয়সে বিশ্বকাপের ফাইনালে গোল করার নজীর সৃস্টি করেছেন। মস্কোতে অনুষ্ঠিত ফাইনালে তার দল ফ্রান্স ৪-২ গোলে ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন শিরোপা জয় করে।
মোনাকো থেকে ১৮০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে পিএসজিতে যোগ দেয়া এমবাপে কোন অংশেই পিছিয়ে নেই ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিশ্ব রেকর্ড গড়া ফিতে বার্সেলোনা থেকে আসা নেইমারের চেয়ে।
পিএসজিতে যোগ দেয়া ইতালীয় কিংবদন্তী গোল রক্ষক জিয়ানলুইজি বুফনের মতে পেলের পদাঙ্ক অনুসরন করে এমবাপে সর্বকালের সেরা ফুটবলারের খেতাব অর্জন করতে সক্ষম হবে। তিনি বলেন, ‘আমার বন্ধু আন্দ্রে বারজাগলি আমাকে বলেছেন, তার ২০ বছরের ক্যারিয়ারে বল নিয়ে এমন দ্রুতগতির খেলোয়াড় তিনি দেখেননি।’ ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লীগের সেমি-ফাইনালে এমবাপের মোনাকোর বিপক্ষে জুভেন্টাসের হয়ে লড়েছিলেন তিনি। এমবাপেকে প্রতিহত করা তার জন্য বেশ কঠিন হয়ে পড়েছির বলে মন্তব্য করেন বুফন। অন্যদের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন এমবাপে। আশা করি সে তার লক্ষ্যে পৌছানোর প্রচেস্টা অব্যাহত রাখবে।

image_printPrint