নতুন প্রজন্মকে ডিজিটাল শিল্পবিপ্লবের উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে : মোস্তাফা জব্বার

302
image_printPrint

ঢাকা, ২৮ জুলাই, ২০১৮ (বাসস) : ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ডিজিটাল শিল্পবিপ্লবের চলমান বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় নতুন প্রজন্মকে উপযোগী করে গড়ে তোলার বিকল্প নেই। এ জন্য প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে ডিজিটাল শিক্ষা ব্যবস্থার রূপান্তর অপরিহার্য।
আজ শনিবার ঢাকায় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ মিলনায়তনে বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদের ১৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে বার্ষিক সম্মেলন, দুস্থ শ্রমিকদের মধ্যে চেক বিতরণ ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদ নেতা ও সাবেক সচিব হুমায়ুন খালিদ, খাদ্য ও চিনি শিল্প কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সাকিমুন্নেছা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে নৌপরিবহন সচিব আবদুস সামাদ এবং দুদক সচিব শামসুল আরেফিন উপস্থিত ছিলেন।
বৃহত্তর ময়মনসিংহের গৌরবোজ্জল বিভিন্ন দিক তুলে ধরে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত বিশ্বের কাতারে উপনীত করার যে রূপকল্প প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা করেছেন তা বাস্তবায়নে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের নামে বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদের উদ্যোগে একটি ট্রাস্ট গঠনের ঘোষণার প্রশংসা করে তিনি বলেন, সৈয়দ নজরুল ইসলাম বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে স্বাধীনতার নেতৃত্ব দিয়েছেন, তাঁর স্মৃতি ভাস্বর করে রাখার চেষ্টা থাকবে।
মোস্তফা জব্বার বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কণ্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত সাড়ে ৯ বছরে বাংলাদেশকে বিশ্বে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছেন। উন্নয়নের প্রতিটি সূচকে বাংলাদেশের অভাবনীয় সফলতা বিশ্বে আজ বিস্ময়ের বিস্ময়।
তিনি বলেন, ডিজিটাল দুনিয়ায় বাংলাদেশ আজ নেতৃত্বদানকারী দেশের কাতারে উপনীত হয়েছে। মহাকাশ জয়ের পর গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা ফাইভজির পরীক্ষামূলক কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যহত রাখতে অতীতের মত আগামীতেও শেখ হাসিনার হাতকে সুসংহত করতে এখন থেকে কাজ করে যাওয়ার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে মন্ত্রী কৃতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তি এবং দুস্থ শ্রমিকদের মধ্যে অনুদানের চেক হস্তান্তর করেন।