হাত হারানো রাজিবকে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ প্রশ্নে হাইকোর্টের রুল

107

ঢাকা, ৪ এপ্রিল ২০১৮ (বাসস) : রাজধানীতে দুই বাসের বেপরোয়া গতির রেষারেষিতে হাত হারানো তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব হোসেনকে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না- জানতে চেয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আজ রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।
রুলে সাধারণের চলাচলে বিদ্যমান আইন কঠোরভাবে কার্যকরে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা পুনরাবৃত্তি রোধে প্রয়োজনে আইন সংশোধন ও নতুন করে বিধিমালা প্রণয়নের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না- তাও জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট। চার সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব, সড়ক পরিবহন সচিব, আইজিপি, ডিএমপি কমিশনারসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আজ বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।
একই সঙ্গে তার চিকিৎসা ব্যয় ‘বিআরটিসি’ ও ‘স্বজন পরিবহন’র মালিকদের বহন করতেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
আজ গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর যুক্ত করে রিট আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল।
ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, আজ বেশ কয়েকটি পত্রিকায় মর্মান্তিক একটি ঘটনার খবর ও ছবি প্রকাশ হয়েছে। এটা নিয়ে আদালতে আমরা জনস্বার্থে একটি মামলা দায়ের করেছি। দুই বাসের অসুস্থ প্রতিযোগিতায় তিতুমীর কলেজের এক ছাত্রের একটি হাত কাটা গেছে। বিষয়টি আদালতের নজরে আনলে আদালত রুলসহ এ আদেশ দেয়।
প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার বেলা দেড়টার দিকে রাজধানীর বাংলামোটরের দিক থেকে ফার্মগেটমুখী একটি দ্বিতল বিআরটিসি বাস সার্ক ফোয়ারার কাছে পান্থকুঞ্জের পাশে সিগনালে থেমে ছিলো। পরে একই দিক থেকে আসা স্বজন পরিবহন নামের একটি বাস দ্রুতগতিতে এসে দোতলা বাসের পাশের ফাঁক দিয়ে ঢুকে সামনে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় যাত্রী রাজিব হাসানের ডান হাত দ্বিতল বাসের সঙ্গে লেগে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং হাতটি দ্বিতল বাসের সঙ্গে ঝুলছিলো। পরে তাৎক্ষণিকভাবে রাজিবকে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে নেয়া হয়।

image_printPrint