আগামী নির্বাচনে সকল দল অংশ নেবে : প্রধানমন্ত্রী

228

ঢাকা, ২৩ জুলাই, ২০১৮ (বাসস) : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, এ বছরের শেষ নাগাদ অনুষ্ঠেয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সকল রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে।
সফররত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাণিজ্য দূত রুশনারা আলী এমপি আজ সন্ধ্যায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি এ কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বৈঠকের পর সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, ‘আগামী সাধারণ নির্বাচনের প্রসঙ্গ আলোচনায় উঠলে সকলেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে বলে প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন। শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর সরকারের মেয়াদে বর্তমান নির্বাচন কমিশন দেশে এ পর্যন্ত স্থানীয় এবং জাতীয় পর্যায়ে উপ-নির্বাচনসহ সাড়ে ৬ হাজারেরও বেশি নির্বাচন পরিচালনা করেছে, যেগুলো অবাধ এবং নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
তিনি বলেন, ব্রিটেনে ধারাবাহিক গণতন্ত্র বজায় রয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশে স্বৈরশাসনের কারণে বারবার গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা ক্ষুণœ হয়েছে, যে কারণে এখানকার অনেক জনকল্যাণমূলক কর্মসূচিই বন্ধ হয়ে যায়।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের অংশ হিসেবে ঢাকা-চট্টগ্রাম, সিলেট, দিনাজপুর এবং বরিশালের মধ্যে বুলেট ট্রেন (দ্রুতগতির ট্রেন) চালুর পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর সরকারের।
তিনি তাঁর প্রথম মেয়াদে বাংলাদেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডে বিশেষ করে তথ্য প্রযুক্তি এবং জ্বলানি খাতে ব্রিটিশ সরকারের সহযোগিতার কথা স্মরণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী নারী শিক্ষার্থীদের জন্য অর্থনৈতিক সাহায্যসহ শিক্ষা খাতকে উৎসাহিতকরণে রুশনারা আলীর অবদানের প্রশংসা করেন।
সরকার রেল যোগাযোগ আরো বৃদ্ধি করতে চায় উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ঢাকা থেকে বরিশালসহ পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেল যোগাযোগ স্থাপন করা হবে। ব্রিটিশ সরকারের সহযোগিতায় এবং ব্রিটিশ কোম্পানির তত্ত্বাবধানে এটি নির্মিত হবে। এই উপমহাদেশে প্রথম রেল যোগাযোগ স্থাপনকারী ব্রিটিশ কোম্পানিই ঢাকা-পায়রা রেল যোগাযোগ নির্মাণ করবে।
রুশনারা আলী বলেন, তারা বাংলাদেশের সঙ্গে দৃঢ় বাণিজ্যিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে সংকল্পবদ্ধ এবং এক্ষেত্রে ব্রেক্সিট কোন বাধা হয়ে দাঁড়াবে না।
তিনি বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক খাতের বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশের উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন।
প্রধানমন্ত্রীর কন্যা এবং প্রখ্যাত অটিজম কর্মী সায়মা ওয়াজেদ হোসেন, মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান এবং বাংলাদেশে ব্রিটিশ হাইকমিশনার অ্যালিসন ব্ল্যাক এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
কিভাবে দু’দেশের মধ্যে বিদ্যমান বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ আরো শক্তিশালী করা যায়, এ বিষয়ে আলোচনা করতে রুশনারা আলী পাঁচ দিনের সফরে শনিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশে আসেন।

image_printPrint