সাম্প্রদায়িকতা আর জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকদের ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে : তথ্যমন্ত্রী

150

ঢাকা, ১৯ জুলাই, ২০১৮ (বাসস) : তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ আর এদের পৃষ্ঠপোষকদের ক্ষমতার বাইরে রাখার আহবান জানিয়েছেন।
‘মাদককারবারিরা মানুষ, পরিবার, সমাজ ও দেশের শত্রু, তাই এদের ধ্বংস অনিবার্য’ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ আর এদের পৃষ্ঠপোষকেরাও একইভাবে মানুষ, দেশ, গণতন্ত্র ও রাজনীতির শত্রু। এদের রাজনীতির মাঠ থেকে বিদায় দিতে হবে, ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে।’
হাসানুল হক ইনু আজ বিকেলে ঢাকার মিরপুর এক নম্বর গোলচত্বরে জাসদ আয়োজিত মাদক ও জঙ্গিবাদ বিরোধী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
জাসদ নেতা হাজী আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে মাদক বিরোধী এ সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার এমপি, সহ-সভাপতি মীর হোসাইন আখতার এবং প্রধান বক্তা হিসেবে জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নূরুল আখতার বক্তৃতা করেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এই মুহূর্তে দেশের রাজনীতির মূল প্রশ্ন হচ্ছে, দেশ কি খালেদা-তারেক-বিএনপি-জামাতের হাত ধরে পাকিস্তান-আফগানিস্তানের রক্তাক্ত রাজাকার-জঙ্গিবাদের পথে যাবে, না শেখ হাসিনার হাত ধরে শান্তি-উন্নয়ন ও বাংলাদেশের পথে এগিয়ে যাবে?’
‘এই মূল প্রশ্নকে পাশ কাটানোর কোনো সুযোগ নেই’ উল্লেখ করে মন্ত্রী আরো বলেন, জঙ্গি ও জঙ্গিসঙ্গী খালেদা-তারেক-বিএনপি-জামাত-২০ দলের বিষয়ে সবার আগে মুখ খুলতে হবে। যারা এপ্রশ্নে মুখ না খুলে নির্বাচন, নিরপেক্ষ সরকার নিয়ে কথা বলছেন, তারা আসলে খালেদা-তারেক-জামাত ও জঙ্গি-যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে চাইছেন।’
বিএনপি’র উদ্দেশ্যে জাসদ সভাপতি বলেন, ‘রাখ-ঢাক ছেড়ে আসল কথা বলুন, আপনারা কি চান? জনগণ জানে, আপনারা গণতন্ত্র-নির্বাচনের ধার ধারেন না। খালেদাসহ যুদ্ধাপরাধী-জঙ্গি-আগুনসন্ত্রাসীদের আইনের হাত থেকে বাাঁচানোই আপনাদের উদ্দেশ্য। আর সেজন্যই নির্বাচন বানচাল-ভন্ডুলের উছিলা খোঁজেন।’
‘সেই উছিলাতেই নির্বাচনে আসার সাথে খালেদা জিয়ার মুক্তির অবাস্তব, অসাংবিধানিক শর্ত জুড়ে দিয়ে দেশে অস্বাভাবিক পরিস্থিতি তৈরির পাঁয়তারা করছে বিএনপি’, বলেন তথ্যমন্ত্রী ইনু।
সভায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বচনে ঢাকা -১৪ আসনে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নূরুল আখতারকে জাসদের প্রার্থী ঘোষণা দিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, চাল থেকে কংকর বেছে ফেলার মতই জাতীয় রাজনীতি থেকে দুষ্ট এবং দুর্বল উপাদান বেছে ফেলার চালানি হাতে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তনি বলেন , আগামীর রাজনীতি হবে সৎ এবং সক্ষমদের।

image_printPrint