গোপালগঞ্জে নৈশকোচ রাস্তার খাদে, নিহত ৮

গোপালগঞ্জ, ১ এপ্রিল, ২০১৮ (বাসস) : জেলার মুকসুদপুরে দিগনগর ইউনিয়নের বিশ্বম্ভরদী গ্রামে ঢাকা থেকে বরিশালগামী নৈশকোচ রাস্তার খাদে পড়ে ৮ জন নিহত হয়েছে।
রোববার ভোররাত আনুমানিক পৌনে তিনটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় ২৯ যাত্রী আহত হয়েছে। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।
এর মধ্যে ৪ জনের নাম পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন- বরগুনার হাসান মিয়া (২৫),বরিশালের অসিম মাঝি (৩৫), দিপন বিশ্বাস (২৮) এবং বরগুনার নাজির গাজী (৩৬)। বাকীদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করা যায়নি। আহতদেরকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বরইতলার নিকটবর্তী বিশ্বম্ভরদী গ্রামে রোববার ভোর রাত পৌনে তিনটার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বরিশালগামী সুগন্ধা পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে রাস্তার খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বাসের ৬ যাত্রী নিহত হয় এবং আহত হয় আরো অন্তত ৩১ যাত্রী । ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরো ২ জনের মৃত্যু হয়।
গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক জানে আলম জানান, খবর পেয়ে মুকসুদপুর থানার সিন্দিয়াঘাট পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের গোপালগঞ্জ, ফরিদপুরের ভাঙ্গা ও মুকসুদপুরের ৪ টি টিম হতাহতদের উদ্ধারের কাজে নামে।
আহতদেরকে প্রথমে ফরিদপুরের ভাংগা স্বাস্থ্য কেন্দ্র ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে ২৯ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে আরো ২ জন মারা যায়।
ফরিদপুরের ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি এজাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, নিহতদের লাশ তাদের কাছে রয়েছে। নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করে তাদের স্বজনদের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হবে।