পাহাড় কাটা বন্ধ হলে অপ্রত্যাশিত মৃত্যুও বন্ধ হবে : ত্রাণমন্ত্রী

177

ঢাকা, ১২ জুলাই, ২০১৮ (বাসস) : দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম এমপি বলেছেন, পাহাড় কাটা বন্ধ হলেই অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি পাহাড় যেমন বেঁচে যাবে তেমনি পাহাড় ধসে অপ্রত্যাশিত মৃত্যুও বন্ধ হবে।
তিনি বলেন, ২০১৭ সালে পাহাড় ধ্বসে ১৬৬ জন মারা যায় এবং ২২৭ জন আহত হয়। রাঙ্গামাটি জেলাতে সর্বোচ্চ ১২০ জন মারা যায়।
মায়া আরো বলেন, পাহাড়ের অবস্থা, প্রকৃতি ও ভূমিরূপের ভিত্তিতে দুর্যোগ সহনশীল ও পরিবেশ বান্ধব পাহাড় রক্ষণাবেক্ষণ ও ব্যবহার নীতিমালা প্রনয়ন ও বাস্তবায়ন করা হলে ভূমিধ্বসে হতাহতের সংখ্যা অনেক কমানো সম্ভব হবে।
মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম আজ সন্ধ্যায় রাজধানীর রমনাস্থ আইইবি মিলনায়তনে পুরকৌশল বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত ‘ভূমিধ্বস : সমস্যা, চ্যালেঞ্জ এবং করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
আইইবি’র পুরকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আইইবি’র সভাপতি ও আওয়ামী লীগের বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর।
এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং সরকারী কর্ম কমিশনের সদস্য প্রকৌশলী ড. আব্দুল জব্বার খান। আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ভূতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. রেশাদ মুহাম্মদ ইকরাম আলী এবং চট্টগ্রাম প্রকৌশল এবং প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক প্রকৌশলী ড. সুদীপ কুমার পাল।
সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইইবি’র সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী খন্দকার মনজুর মোর্শেদ।

image_printPrint