যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে যাওয়ায় পরমাণু চুক্তি বহাল রাখা ইরান-আলোচনার লক্ষ্য

216

ভিয়েনা, ৬ জুলাই, ২০১৮ (বাসস ডেস্ক) : ইরান ও বিশ্বের পাঁচটি ক্ষমতাধর দেশের কূটনীতিকরা শুক্রবার বৈঠকে বসতে যাচ্ছে। ইরানের সঙ্গে করা পারমাণবিক চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে যাওয়া সত্ত্বেও এই চুক্তি থেকে আর্থিকভাবে সুবিধা পাওয়ার নিশ্চয়তা প্রশ্নে তেহরানের প্রচেষ্টার প্রেক্ষাপটে তারা এ বৈঠকে বসছেন। খবর এএফপি’র।
এদিকে এ আলোচনা শুরুর প্রাক্কালে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁনকে বলেছেন যে বর্তমান প্রস্তাবের ব্যাপারে ইউরোপীয় অর্থনৈতিক পদক্ষেপ যথেষ্ঠ না।
ইরানের বার্তা সংস্থা আইআরএনএ’র খবরে বলা হয়, ম্যাক্রোঁনকে টেলিফোনে রুহানি বলেন যে এই প্যাকেজ প্রস্তাবে আমাদের সকল চাহিদা পূরণ হবে না।
উল্লেখ্য, গত মে মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর থেকেই ওয়াশিংটন ইরানে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বন্ধে এবং শাস্তিমূলক পদক্ষেপের অংশ হিসেবে নভেম্বর মাসের গোড়ার দিক থেকে তেহরানের কাছ থেকে জ্বালানি তেল ক্রয় বন্ধ করে দিতে বিশ্বের অন্যান্য দেশকে সতর্ক করে দিয়েছে।
তবে এ পরমাণু চুক্তিতে স্বাক্ষর করা অন্য দেশ ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন ও রাশিয়া এই চুক্তি বহাল রাখার পক্ষে অঙ্গীকার ব্যক্ত করলেও যুক্তরাষ্ট্রের শাস্তিমূলক পদক্ষেপের আশংকায় এসব দেশের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানকে ইরান থেকে সরে আসা বন্ধ করতে অসহায় বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।
ভিয়েনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে ইউরোপীয় প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করা হবে।
ইউরোপীয় এক কূটনীতিক প্রস্তাবের ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু উল্লেখ না করে বলেন, আর এই প্রস্তাবের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে ২০১৫ সালের চুক্তির ব্যাপারে অটল থাকতে ইরানকে রাজি করানো।
বিশ্বের ক্ষমতাধর পাঁচটি দেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ কূটনীতিকরা ভিয়েনায় গ্রিনিচ মান সময় ০৯০০টা থেকে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা রয়েছে। ২০১৫ সালে সেখানেই এ পরমাণু চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়েছিল।

image_printPrint