সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জনগণ দুর্নীতিবাজদের প্রত্যাখ্যান করবে : হানিফ

113
image_printPrint

সিলেট, ৪ জুলাই, ২০১৮ (বাসস) : আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল- আলম হানিফ এমপি বলেছেন, সদ্য সমাপ্ত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মত সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনেও জনগন দুর্নীতিবাজদের প্রত্যাখান করবে। দেশের জনগণ উন্নয়ন চায়। তাই তারা খুলনা ও গাজীপুরের নির্বাচনে দুর্নীতিবাজদের প্রত্যাখ্যান করেছে।
সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনেও সিলেটবাসী দুর্নীতিবাজদের বিদায় জানাবে। জনগণ উন্নয়নের পক্ষে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করবে।
মাহবুব-উল-আলম হানিফ আজ বুধবার বিকেলে সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
নির্বাচনী আচরণবিধির কারণে শহরের বাইরে এ সভার আয়োজন করা হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান সভায় সভাপতিত্ব করেন।
মাহবুব-উল- আলম হানিফ বলেন, ২০১৩ সালে ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারের মাধ্যমে বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানকে পরাজিত করা হয়েছিল। সে সময় বিভিন্ন দেশের গণহত্যার ছবি হেফাজতের শাপলা চত্বরের ঘটনার চিত্র বলে প্রচার করা হয়েছিল। এই নির্বাচনে সে ধরনের অপপ্রচারের শঙ্কার কোন কারণ নেই। দলীয় নেতা-কর্মীরা এখন অনেক বেশি ঐক্যবদ্ধ।
তিনি বলেন, অলি-আউলিয়াদের পদচারণার পূণ্যভূমি সিলেটে আমাদের বিজয় আসবে এবং এ বিজয়ের মধ্য দিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা আবারো সরকার গঠন করবো।
সদ্য সাবেক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, গত পাঁচ বছর বিএনপির মেয়র এই সিটিতে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি অনেক কাজ করেছেন, যা বর্তমান সরকারের অর্থায়নে হয়েছে। অর্থমন্ত্রী নিজের নির্বাচনী এলাকার স্বার্থে অনেক বেশি বরাদ্দ দিয়েছেন। এসব কাজের কৃতিত্ব সরকারের। তবে তিনি বলেন, বিএনপির অনেক নেতা বলছেন সিলেট নগরীর উন্নয়নে সরকার যে পরিমাণ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে তার অর্ধেকও কাজ হয়নি। এ বিষয়ে তিনি দুর্নীতি দমন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
হানিফ বলেন, বিএনপি জামায়াতের আমলে বাংলাদেশ বিশ্বে দুর্নীতিতে সেরা একটি ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছিল। সেই দেশের নেতৃত্বে এসে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা মাত্র সাড়ে ৯ বছরে দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রের তালিকা থেকে বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ও অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।
সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদের পরিচালনায় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিলেট সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সহ-সভাপতি গাজী জাফর সাদেক কয়েস, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি, জাতিসংঘের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ কে আব্দুল মোমেন প্রমূখ।