জয়িতারা বাংলাদেশে নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নের উদাহরণ : মহিলা বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

81

ঢাকা, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ (বাসস) : মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, জয়িতা মানে জয়ী নারী। জীবন সংগ্রামে অপ্রতিরোধ্য ও আত্মপ্রত্যয়ী নারীর নাম জয়িতা। এই জয়িতারা আমাদের দেশে নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নের অনন্য উদাহরণ । কেবল নিজের অদম্য ইচ্ছা ও সাহসের মাধ্যেম তারা সকল বাঁধা অতিক্রম করে নিজ নিজ ক্ষেত্রে সফল হয়েছে।
আজ বুধবার চট্টগ্রামের ষোলশহরে এলজিইডি ভবনে চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় আয়োজিত জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
চট্রগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বদরুন নেসা ও চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন।
প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রের জয়িতাদের চিহ্নিত করে তাদের যথাযথ সম্মান, স্বীকৃতি ও অনুপ্রেরণা প্রদান করে সমাজের আপামর নারীদের মধ্যে আস্থা সৃষ্টি করা এবং তাদের জয়িতা হতে অনুপ্রাণিত করছে সরকার। যা দেশব্যাপী সর্বস্তরের মানুষের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় ও প্রশংসিত হয়েছে।
ইন্দিরা বলেন, শুধু আইন দিয়েই নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করা যাবে না। সমাজের সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি ও সকলের সহযোগিতার মাধ্যমে নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করা যাবে। নারী ও শিশুদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করতে হবে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৭ সালে নারী নীতি প্রনয়ণ করেছিলেন, পরবর্তীতে বিএনপি ক্ষমতায় এসে সেই নারী নীতি বাতিল করে দেয়। যার ফলে নারীর ক্ষমতায়ন, অগ্রগতি ও উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ হয়। গত ১০ বছরে নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ বিশ্বে রোল মডেল।
আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ (২৫ নভেম্বর হতে ১০ ডিসেম্বর) এবং বেগম রোকেয়া দিবস (৯ ডিসেম্বর) উদযাপনকালে দেশব্যাপী ২০১৩ -১৪ অর্থবছর থেকে “জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ” কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী, শিক্ষা ও চাকুরীর ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী নারী, সফল জননী নারী, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করেছেন যে নারী, সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখেছেন যে নারী এই পাঁচ ক্যাটাগরিতে চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ টি জেলার ৫৫ জন নির্বাচিত জয়িতাদের মধ্যে থেকে ৫ শ্রেষ্ঠ জয়িতাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।
সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ ৫ জন জয়িতা নিজেদের সংগ্রাম, সামাজিক বাঁধা ও সাফল্যের অনুভূতি তুলে ধরেন।

image_printPrint