বাসস দেশ-২৯ : ইন্দো-প্যাসিফিক সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ মোমেনের

214

বাসস দেশ-২৯
মোামেন-ইন্দো-প্যাসিফিক
ইন্দো-প্যাসিফিক সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ মোমেনের
ঢাকা, ১১ নভেম্বর, ২০১৯ (বাসস) : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের সত্যিকার সম্ভাবনা কাজে লাগাতে আন্তঃআঞ্চলিক বাণিজ্য ও ভৌত-সংযোগের মাধ্যমে দক্ষিণ, দক্ষিণ-পূর্ব ও পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সহযোগিতা আরো বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।
তিনি বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে আমাদের মধ্যে সম্ভাব্য ভবিষ্যৎ সহযোগিতার বিশাল ক্ষেত্র দেখতে পাই। এটি অনস্বীকার্য সত্য যে, আন্তঃআঞ্চলিক বাণিজ্য ও ভৌত-সংযোগ সত্যিকার সম্ভাবনার তুলনায় খুবই নগণ্য।’
বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিস) এবং ভারতের অবজারভার রিসার্চ ফাউন্ডেশন (ওআরএফ)-এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগ ২০১৯-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে ৪৫টি দেশের ১৫০ জন প্রতিনিধির অংশগ্রহণে এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।
মোমেন আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগের মাধ্যমে আঞ্চলিক দেশসমূহের মধ্যে সহযোগিতার ক্ষেত্র সম্প্রসারণ ও অভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে সক্রিয় সহযোগিতা ও সহায়তা আরো সুফর বয়ে আনবে।
তিনি বলেন, ‘আমরা সত্যিকার অর্থে এশিয়ান শতাব্দীতে বসবাস করছি। দক্ষিণ এশিয়া, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া ও পূর্ব এশিয়ার দেশগুলো বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক দ্রুত বিকশিত হচ্ছে।’
শান্তি ও স্থিতিশীলতা ছাড়া কোনো দেশ বা অঞ্চল সমৃদ্ধ হতে পারে না বা লক্ষ্যে পৌঁছতে পারে না উল্লেখ করে মোমেন বলেন, সেজন্য জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোত্র বা প্রেক্ষাপট নির্বিশেষে সকলের পারস্পরিক সম্মান ও সহিষ্ণুতার মানসিকতা গড়ে তুলতে সহায়তা করতে হবে।
তিনি একটি শান্তিপূর্ণ ও স্থিতিশীল বিশ্ব গড়তে সকলকে হাত মেলানোর আহ্বান জানান।
বাসস/টিএ/অনুবাদ-এইচএন/২১১৫/কেএমকে