ছুটির দিনে শিশু একাডেমীতে জমজমাট বইমেলা

49
image_printPrint

ঢাকা, ২৪ মার্চ, ২০১৮ (বাসস) : শিশু-কিশোরদের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা সংগ্রামের গান, নাটক, কবিতার সমন্বয়ে উৎসবমুখর হয়ে উঠলো বাংলাদেশ শিশু একাডেমীতে ছুটির দিনের বইমেলা।
সাপ্তাহিত ছুটির দিন হওয়ায় আজ শিশু একাডেমীর বইমেলা ছিল জমজমাট। বিপুল সংখ্যক শিশু-কিশোর,তাদের অভিভাবক ও সাধারণ দর্শনর্থীদের উপস্থিতিতে মেলাঙ্গন জমজমাট হয়ে উঠে। মেলায় শিশু-কিশোর গ্রন্থসহ সকল ধরনের বইয়ে ক্রেতাদের ২৫ ভাগ কমিশন দেয়া হচ্ছে। বই বিক্রিও চলছে সমান তালে।
মেলার মূলমঞ্চে শুরুতেই শিশু একাডেমীর নিজম্ব শিশু শিল্পীরা পরিবেশন করে নৃত্যের তালে তালে সংগীত। শিশুদের দুটি দল মুক্তিযুদ্ধের গানের সঙ্গে উদ্দীপনামূলক নৃত্যে অংশ নেয়। পরে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির শিশু অ্যাক্রোবেটিক দলের সদস্যদের আধঘন্টার মনোরম পরিবেশনায় ছিল নানা কসরত। মুক্তিযুদ্ধের পথ নাটক প্রদর্শন করে আরেকটি দল। ভীষণ আনন্দে শিশুরা এ দলটির পরিবেশনাকে উপভোগ করে। বিভিন্ন বয়সের মানুষ সারাক্ষণই মেলার স্টলগুলোতে ভীড় করছেন।
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শুরুতে শিশু একাডেমীর পরিচালক আনজীর লিটন তার বক্তৃতায় বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে এবারের শিশু একাডেমীর বইমেলা নতুনভাবে সাজানো হয়েছে। মেলায় ৫৬টি স্টলের সবগুলোতেই শিশুদের বই প্রাধান্য দিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে। মূল মঞ্চে প্রতিদিনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে একাডেমির নিজম্ব শিল্পীরা ছাড়াও রাজধানীর ১৪টি স্কুল ও শিল্পকলা একাডেমিরসহ বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের শিল্পীরা অংশ নিচ্ছেন। এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে শিশু সাহিত্যিক ফারুক নওয়াজ বক্তব্য রাখেন।
বইমেলায় প্রতিদিনই অসংখ্য লেখক, সাহিত্যিক আসছেন। বিভিন্ন স্টলে বসে তারা আড্ডায় সময় কাটাচ্ছেন। আজ মেলায় কথাসাহিত্যিক ইসহাক খান বাসসকে বলেন, এবারের মেলা খুব গুছানো। সব অনুষ্ঠান শিশুদের জন্য। শিশুরাই নানা ইভেন্টে অংশ নিচ্ছে। বই বিক্রিও হচ্ছে। তিনি বলেন,এই মেলাটি দেশের বিভিন্ন জেলায় হওয়া প্রয়োজন। আমাদের শিশুদের মেধাবী করতে বইমেলা একটি বিশেষ আয়োজন। এ আয়োজনে ঢাকার বাইরের সন্তানদেরও অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া দরকার।
শিশু একাডেমীর বইমেলা শুরু হয়েছে গত ১৬ মার্চ থেকে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আয়োজিত বইমেলা প্রাঙ্গণে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকেও ক্রেতারা ছুটে আসছেন। মাগুরা থেকে এসেছেন বই ব্যবসায়ী মোহাম্মদ সোলায়মান। তিনি একটি স্টলে তালিকা দেখে দেখে বই ক্রয় করছেন। বাসসকে তিনি জানান, তার এলাকায় শিশুকিশোর উপযোগী বইয়ের বেশি চাহিদা। তার বইয়ের দোকানের জন্য এ মেলা থেকে ১৩ হাজার টাকার ছোটদের বই কিনেছেন।
শিশু একাডেমী থেকে জানানো হয়, বইমেলা চলবে ২৭ মার্চ পর্যন্ত। ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন বিকেল তিনটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত এবং ছুটির দিন এগারটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত মেলা চলছে।