পরিবেশ বান্ধব সিমেন্ট শিল্প স্থাপনে ভূমিমন্ত্রীর আহবান

267

ঢাকা, ৫ নভেম্বর, ২০১৯ (বাসস) : পরিবেশ বান্ধব সিমেন্ট কারখানা স্থাপনের আহ্বান জানিয়ে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেছেন, জাতীয় উন্নয়ন কাঠামো এবং লক্ষ্যগুলোর সাথে সঙ্গতি রেখে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলা এবং টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বর্তমান সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। পরিবেশ বান্ধব সিমেন্ট শিল্প স্থাপনের পদক্ষেপ নেওয়ার এখনই সময়।
আজ মঙ্গলবার ঢাকার একটি হোটেলে ‘বাংলাদেশ সিমেন্ট প্রস্তুতকারক সমিতির (বিসিএমএ) সহযোগিতায় ইন্টারসেম-এর উদ্যোগে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সিমেন্ট শিল্প সম্মেলন-এর দ্বিতীয় দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভূমিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
সম্মেলনে বাংলাদেশসহ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, চীন, সাইপ্রাস, মিশর, জার্মানি, হংকং, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, জাপান, জর্ডান, মাল্টা, নেপাল, নেদারল্যান্ডস, ওমান, পাকিস্তান, পর্তুগাল, সৌদি আরব, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য, ভিয়েতনাম- এর সিমেন্ট প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশ নিচ্ছেন।
সাইফুজ্জামান চৌধুরী আরও বলেন, দারিদ্র্য হ্রাস এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য সাফল্য লাভ করেছে। টেকসই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ফলে নগরায়ন, শিল্পায়ন, জ্বালানি ইত্যাদির চাহিদা দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে বাংলাদেশে সিমেন্ট শিল্পের প্রসার ও অগ্রগতির বিশাল সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।
তিনি বলেন, ওয়ান স্টপ সার্ভিস এবং অন্যান্য মৌলিক অবকাঠামো যেমন আধুনিক সড়ক যোগাযোগ, বিদ্যুৎ, গ্যাস, সুরক্ষা ইত্যাদি সুবিধা সহ সরকার সারাদেশে ১০০ টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করছে। আমরা এই অর্থনৈতিক অঞ্চলে সবাইকে বিনিয়োগে স্বাগত জানাচ্ছি।
অনুষ্ঠানে বিসিএমএ সভাপতি আলমগীর কবির, ইন্টারসেম প্রধান নির্বাহী ম্যালকম শেলবর্ন সহ দেশ-বিদেশের সিমেন্ট উৎপাদন শিল্পের উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী, নির্বাহী এবং অন্যান্য অংশীজনেরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, পারস্পরিক সম্পর্কের উন্নয়ন ও অভিজ্ঞতা বিনিময় সহ বাংলাদেশ ও বিশ্বের সিমেন্ট শিল্পের উপর বিভিন্ন উপস্থাপনার মাধ্যমে ধারণা লাভ এবং এ শিল্প সম্পর্কিত বাণিজ্যিক পূর্বাভাস বিষয়ে অবগত হবার জন্যে বিভিন্ন অঞ্চলের সিমেন্ট শিল্পে কর্মরত নির্বাহীদের জন্যে সম্মেলনটি একটি ফোরাম হিসেবে কাজ করবে বলে আশা করা যাচ্ছে।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, একটি বৃহৎ সিমেন্ট উৎপাদনকারী দেশ হবার পাশাপাশি বাংলাদেশ বিশ্বের ৪০তম বৃহৎ সিমেন্টের বাজার এবং বিশ্বের বৃহত্তম ক্লিঙ্কার আমদানিকারক। এক সময়ের সিমেন্ট আমদানিকারক বাংলাদেশ এখন সিমেন্ট রফতানিকারক দেশে পরিণত হয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের মধ্যে বাংলাদেশ ১২.৫৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের সিমেন্ট রফতানি করেছে। ছোট-বড় মিলে দেশে ৪২টি সিমেন্ট প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান আছে। দেশের বেশিরভাগ মেগা প্রজেক্টে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ সিমেন্ট ব্যবহৃত হচ্ছে।

image_printPrint