নেইমার বিহীন ব্রাজিলের সহজ জয়

88

মস্কো, ২৪ মার্চ, ২০১৮ (বাসস) : স্বাগতিক রাশিয়াকে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে ৩-০ গোলে সহজেই পরাজিত করে পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল তারকা স্ট্রাইকার নেইমারের অনুপস্থিতি বুঝতেই দেয়নি।
ইন্টার মিলানের ফুল-ব্যাক মিরান্ডা দ্বিতীয়ার্ধ্বের শুরুতে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। এরপর একে একে বার্সেলোনা মিডফিল্ডার ফিলিপ কুতিনহো ও পলিনহোর গোলে মস্কোর সংষ্কারকৃত লুজিনকি স্টেডিয়ামে ব্রাজিল আত্মবিশ্বাসী জয় তুলে নেয়। এই স্টেডিয়ামে আসন্ন বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।
ব্রাজিলিয়ান ম্যানেজার তিতে বলেছেন, ‘দলের পারফরমেন্সে আমি দারুণ খুশী। এই ম্যাচের জন্য আমরা অনুশীলনে যে ধরনের কৌশল অবলম্বন করেছিলাম তার সবকিছুই আজ খেলোয়াড়রা দেখিয়েছে। অনুশীলনে তাদেরকে যা শিক্ষা দেয়া হয়েছে সব কিছুই তারা দারুণভাবে রপ্ত করেছে। যে কয়টি গোলের সুযোগ তারা পেয়েছে সবকটি কাজে লাগিয়েছে বলেই সহজ জয় এসেছে। প্রথমার্ধ্বে আমরা রাশিয়ার খেলা পর্যবেক্ষণ করেছি। বিরতির পরে কিছু পরিবর্তন করে নিজেদের সেরাটা দেবার চেষ্টা করেছি। আমি বিশ্বাস করি বিশ্বকাপের জন্য আমার দল প্রায় প্রস্তুত।’
পরের ম্যাচে ২০১৪ সালের সেমিফাইনালের প্রতিপক্ষ জার্মানীর বিপক্ষে দলকে ব্রাজিলকে মানসিক ভাবে প্রস্তুত করে তোলাই এখন তিতের মূল চ্যালেঞ্জ। এ সম্পর্কে তিতে বলেছেন, এখন আমাদের মূল কাজ হচ্ছে আগের বিশ্বকাপে জার্মানদের কাছে ৭-১ গোলের পরাজয়ের দুঃসহ স্মৃতি ভুলে তাদের মোকাবেলা করা। বার্লিনে নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী পারফর্ম করতে চাই। আমাদের অবশ্যই মানসিকভাবে চাঙ্গা থাকতে হবে। মঙ্গলবারের ম্যাচটিতে ভাল খেলার কোন বিকল্প নেই।
ইনজুরি আক্রান্ত নেইমারকে ছাড়াই কাল মাঠে নেমেছিল ব্রাজিল। শুরুটাও দারুণ করেছিল সফরকারীরা, পাঁচ মিনিটেই ডানি আলভেসের লব বলে ম্যানচেস্টার সিটির স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুসের শট সরাসরি রাশিয়ার গোলরক্ষক ইগর আকিনফিভের হাতে ধরা পড়ে। পজিশন ও বলের ক্ষেত্রে আধিপত্য ধরে রাখলেও রাশিয়ার শক্ত প্রতিরোধের মুখে তেমন কোন ভাল সুযোগ সৃষ্টি করতে পারেনি সেলেসাওরা। রাশিয়ান উইঙ্গার আলেক্সান্দার সামেদভের ২০ গজ দূরের একটি শট ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক এ্যালিসন কর্নারের মাধ্যমে রক্ষা করেন। পাঁচ মিনিট পরে আলেক্সি মিরানচুকের শক্তিশালী শট ক্রসবার দিয়ে বাইরে চলে যায়।
বিরতির দুই মিনিট পরে উইলিয়ানের কাছ থেকে পলিনহো বল পেয়েও আকিনফিভকে পরাস্ত করতে পারেননি। ৫৩ মিনিটে অবশ্য কোন ভুল করেননি মিরান্ডা। থিয়াগো সিলভার হেড থেকে ফিরতি বলে রাশিয়ান গোলরক্ষককে পরাস্ত করলে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। ৯ মিনিট পরে স্পট কিক থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন কুতিনহো। গোল এরিয়ার মধ্যে পলিনহোকে ফাউলের অপরাধে আলেক্সান্দার গোলোভিনের বিপক্ষে পেনাল্টি আদায় করে নেয় ব্রাজিল। ৬৭ মিনিটে ডানদিক থেকে উইলিয়ানের দারুণ এক ক্রুসে দলের পক্ষে তৃতীয় গোল করেন পলিনহো। ম্যাচ শেষে রাশিয়ান কোচ স্টানিসলাভ চেরচেসভ বলেছেন, ব্রাজিল যে বিশ্বমানের একটি দল তাতে কোন সন্দেহ নেই। তারা আমাদের ভুল করতে বাধ্য করেছে। আমরাও আজ কিছু সুযোগ পেয়েছিলাম। কিন্তু সেগুলোর কোনটাই কাজে লাগাতে পারিনি।

image_printPrint