বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সাংস্কৃতিক সম্পর্ক জোরদারের ওপর তথ্যমন্ত্রীর গুরুত্বারোপ

305

ঢাকা, ২১ অক্টোবর, ২০১৯ (বাসস) : তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ চলচ্চিত্র বিনিময়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সাংস্কৃতিক সম্পর্ক জোরদারের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।
আজ ঢাকায় বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি অডিটোরিয়ামে ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম এ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আমাদের সাংস্কৃতিক সম্পর্ক আরো জোরদার করবো। এ ব্যাপারে চলচ্চিত্র বিনিময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।’
মন্ত্রী বলেন, ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম এ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান আয়োজন দু’দেশের জনগণের মধ্যে সম্পর্ক জোরদারের পাশাপাশি বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের চলচ্চিত্র শিল্পকে সমৃদ্ধ করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের জনগণের ভাষা ও সংস্কৃতি অভিন্ন। সীমান্ত অভিন্ন সংস্কৃতির পথে বাধা হতে পারে না।
ড. হাছান বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত দু’দেশের চলচ্চিত্র শিল্পকে সমৃদ্ধ করতে চলচ্চিত্র বিনিময় ও যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মাণ করছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ভালো ছবি হচ্ছে। বেশ কিছু ছবি আন্তর্জাতিক পুরস্কারও পেয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, দেশে চলচ্চিত্র শিল্পের কল্যাণে সরকার সর্বাত্মক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ভারতের মতো বাংলাদেশে বেশ কিছু ঐতিহ্যবাহী সিনেমা হল বন্ধ হয়ে গেলেও বাংলাদেশে সিনেপ্লেক্সের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এসব সিনেপ্লেক্সে বিপুল সংখ্যক মানুষ ছবি দেখছে।
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ অব বাংলাদেশ এবং ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের তথ্য প্রযুক্তি ও ইলেকট্রনিক মন্ত্রী ব্রাত্য বসু, ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান ফেরদৌসুল হাসান, চলচ্চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ, জিতেন্দ্র মাদনানি জিৎ, বাংলাদেশের অভিনেতা আলমগীর এবং অভিনেত্রী মৌসুমী উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে পশ্চিমবঙ্গের অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিক এবং বাংলাদেশের অভিনেত্রী আনোয়ারা বেগমকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয়।

image_printPrint