জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনে নজর দিতে হবে : পলক

208

ঢাকা, ১৩ অক্টোবর, ২০১৯ (বাসস) : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবকে সামনে রেখে আমাদের জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনে নজর দিতে হবে।
শনিবার রাতে সাভারের শেখ হাসিনা জাতীয় যুব উন্নয়ন কেন্দ্রে “স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ : চ্যাপ্টার ২” এর জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্পের শেষ দিন অংশগ্রহণকারী ৭৫টি স্টার্টআপকে সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রতিটি শিশু-কিশোর-তরুণ ছাত্র মেধা ও প্রযুক্তি নির্ভর হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল ধনী-দরিদ্র, শহর-গ্রাম সকল মানুষের সমানভাবে পেতে হলে আমাদের অনেক প্রোডাক্ট দরকার।
তিনি বলেন, আমরা চতুর্থ শিল্প বিপ্ল¬বের সময়ে প্রবেশ করেছি- যেখানে প্রতিটা দিন পরিবর্তন হচ্ছে, প্রতিটা মুহূর্ত পরিবর্তন হচ্ছে। মানুষের কাজ রোবট করছে, মানুষের কাজ আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স করছে। তাই আমাদের এখন আরো বেশি জ্ঞানভিত্তিক সমাজের দিকে নজর দিতে হবে, গবেষণার দিকে নজর দিতে হবে। এবছরই প্রথম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্টার্টআপদের জন্য ১০০ কোটি টাকা এই অর্থবছরের বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ দিয়েছেন।
প্রতিমন্ত্রী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা জানো যে আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করবো ২০২০ ও ২০২১ সালে। মুজিব বর্ষে আমরা অন্ততপক্ষে ১০০ ঘণ্টা অতিরিক্ত কাজ করব।
তিনি বলেন, আমরা তাদের জন্য নতুন একটি ইকোসিস্টেম তৈরি করব। আজকে বিকেএসপি থেকে যেরকম সাকিব-আল-হাসান বের হয়েছে, ওইরকমভাবে ভবিষ্যতে আইসিটি সেক্টর থেকে সাকিব আল হাসান বের হবে।
তিন দিনের জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্প শেষে শনিবার পিচিং এর মাধ্যমে বাছাই করা হয় সেরা ৩০ স্টার্টআপকে। পরবর্তীতে আইডিয়া প্রকল্পের সিলেকশন কমিটির মাধ্যমে বাছাই করা হবে শীর্ষ ১০ স্টার্টআপকে। যারা প্রত্যেকে ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট’ হিসেবে পাবে ১০ লাখ টাকা করে অনুদান। সেই সঙ্গে শীর্ষ ৩০-এ থাকা অপর ২০ স্টার্টআপ রানারআপ হিসেবে আইডিয়া প্রকল্প থেকে গ্রুমিং ও বিশেষ প্রশিক্ষণ নেয়ার সুযোগ পাবে। প্রশিক্ষণ শেষে স্টার্টআপগুলো প্রস্তুত হলে তাদের জন্যও অনুদান প্রদান করবে আইডিয়া প্রকল্প।
শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদ্ভাবনী ভাবনা ও উদ্যোক্তা খোঁজার এই আয়োজনটি গত ১৫ সেপ্টেম্বর আইসিটি টাওয়ারে এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে। দেশের ১০০টির বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বুথের মাধ্যমেও প্রচারণা চালানো হয় এবং শিক্ষার্থীরা অনলাইনে নিবন্ধনের মাধ্যমে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। প্রায় ২৫০০ স্টার্টআপ তাদের উদ্ভাবনী আইডিয়া নিয়ে এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্য থেকে প্রাথমিকভাবে ৮ টি বিভাগ এর ২৪ টি ভেন্যু থেকে ৭৫ টি স্টার্টআপ বাছাই করা হয়। পরবর্তীতে নির্বাচিত স্টার্টআপদের “জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্প”- এ আমন্ত্রণ জানান হয়। এবারের ক্যাম্পে, ৭৫ টি স্টার্টআপ থেকে প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করছে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ শীর্ষক প্রকল্প” বা আইডিয়া প্রকল্প” এর পরিচালক (যুগ্ম-সচিব) সৈয়দ মজিবুল হক, আইডিয়া প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক (উপসচিব) কাজী হোসনে আরা, সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) এর সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদ, স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ এর কো-অর্ডিনেটর আশিকুর রহমান রূপক-সহ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্পের কর্মকর্তাগণ ও পরামশর্কগনসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অংশগ্রহণ করেন ‘ইয়াং বাংলা’-র ক্যাম্পাস অ্যাম্বাসেডরগণ।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর অধীনে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প” (আইডিয়া) দ্বিতীয় বারের মত আয়োজন করছে প্রতিযোগিতাটি। উদ্ভাবনী ভাবনা ও উদ্যোক্তা খোঁজার এই আয়োজনের সহযোগিতায় আছে সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) এর ‘ইয়াং বাংলা’ প¬্যাটফর্ম।

image_printPrint