সিরিয়ায় মার্কিন বাহিনী হামলার শিকার : পেন্টাগণ

119

ওয়াশিংটন, ১২ অক্টোবর, ২০১৯ (বাসস ডেস্ক): সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলের কাছে থাকা মার্কিন সৈন্যরা শুক্রবার তুরস্কের বিভিন্ন অবস্থান থেকে ছোঁড়া কামান হামলার শিকার হয়েছে। এ ব্যাপারে ওয়াশিংটন হুঁশিয়ার করে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র ‘তাৎক্ষণিক প্রতিরক্ষা পদক্ষেপ’ নিয়ে আগ্রাসন মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে। খবর এএফপি’র।
মার্কিন সামরিক বাহিনী সিরিয়ার কোবানি শহরের কাছে তাদের ফাঁড়ির কয়েকশ’ মিটারের মধ্যে স্থানীয় সময় রাত ৯টার দিকে কামান হামলার খবর নিশ্চিত করেছে। এ এলাকায় মার্কিন সৈন্য রয়েছে তুরস্ক তা জানতো।
নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন ব্রুক ডিওয়াল্ট এক বিবৃতিতে বলেন, তবে হামলায় ‘যুক্তরাষ্ট্রের কোন সৈন্য আহত হয়নি। ওয়াশিংটন কোবানি থেকে মার্কিন বাহিনী প্রত্যাহার করে নেয়নি।’
আপাতভাবে মনে করা হচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়ার উত্তর পূর্বাঞ্চলে তুরস্কের অভিযান চালানোর ব্যাপারে সবুজসংকেত দিয়েছেন এবং এ কারণে তিনি কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েন। কারণ ট্রাম্প সীমান্ত থেকে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয়ার নির্দেশ দেয়ার পর পরই তুরস্ক এ অভিযান শুরু করে।
ইসলামিক স্টেট গ্রুপ দমনে পাঁচ বছরের যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান মিত্র কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) তুরস্কের হামলার লক্ষ্য। মার্কিন নেতৃত্বাধীন অভিযানে এসডিএফ তাদের ১১ হাজার যোদ্ধা হারিয়েছে।
শুক্রবার মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভান মুচিন জানান, ফের সামরিক অভিযান চালানো থেকে তুরস্ককে নিবৃত্ত করতে ট্রাম্প ‘নতুন করে অত্যন্ত কঠোর নিষেধাজ্ঞা’ আরোপের অনুমোদন দিয়েছেন। তবে এ নিষেধাজ্ঞা এখনও কার্যকর করা হয়নি।

image_printPrint