প্রতিবন্ধী শিশুদের উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্ত করতে হবে : ঢাবি উপাচার্য

66

ঢাকা, ২১ মার্চ, ২০১৮ (বাসস) : টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে ডাউন সিনড্রোম শিশুসহ সকল প্রতিবন্ধী শিশুকে উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্ত করতে হবে। পাশাপাশি এ ব্যাপারে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।
আজ বিশ্ব ডাউন সিনড্রোম দিবস উপলক্ষে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান এ কথা বলেন।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যোগাযোগ বৈকল্য বিভাগ, ডাউন সিনড্রোম সোসাইটি অব বাংলাদেশ, জাপান বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হসপিটাল এবং আমদা বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হয়। এবছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘হোয়াট আই ব্রিং টু মাই কমিউনিটি’।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যোগাযোগ বৈকল্য বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হাকিম আরিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম, কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন, জাপান বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হসপিটালের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সরদার এ. নাঈম এবং আমদা ইন্টারন্যাশনাল, জাপানের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর কাজুকো তাকেতানি বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য দেন ডাউন সিনড্রোম সোসাইটি অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সরদার এ রাজ্জাক।
উপাচার্য বলেন, শরীরে ক্রোমোজমের একটি বিশেষ অবস্থার কারণে শিশুরা ডাউন সিনড্রোমের মত প্রতিবন্ধকতার শিকার হয়। এ ধরণের শিশুকে অবহেলা না করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এসব ডাউন সিনড্রোম শিশুদের প্রতি যতœশীল ও দায়িত্বশীল হতে হবে। পিতামাতাকে সমর্থন ও সহযোগিতা করতে হবে।
ডাউন সিনড্রোম বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে অবদান রাখায় দেশের ৮ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে অনুষ্ঠানে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। এছাড়া, ডাউন সিনড্রোম সোসাইটি অব বাংলাদেশ প্রকাশিত “ডাউন সিনড্রোম ভয়েস”-এর তৃতীয় সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করা হয়।
পরে ডাউন সিনড্রোম শিশুদের পরিবেশনায় এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে সকালে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র চত্বর থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়।

image_printPrint