সংখ্যালঘুদের নিয়ে প্রিয়া সাহার অভিযোগ ভিত্তিহীন : ডিএমপি কমিশনার

76

ঢাকা, ২০ জুলাই, ২০১৯ (বাসস) : ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, প্রিয়া সাহা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের কাছে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে যে অভিযোগ করেছেন তা সম্পূর্ণ বানোয়াট, ভিত্তিহীন এবং অমূলক।
তিনি বলেন, দেশের সংখ্যালঘুরা নিরাপদে রয়েছেন। দেশের সার্বভৌমত্ব বিপন্ন করতেই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তিনি এই কাজটি করেছেন। তাঁকে আইনি প্রক্রিয়ায় আনতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।
আজ শনিবার ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত সহিংস উগ্রবাদ বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিএমপি কমিশনার এসব কথা বলেন। এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় অনুষ্ঠানটি রাজধানীর বাংলাদেশ চলচিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে (বিএফডিসি) অনুষ্ঠিত হয়।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, দেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের এক শতক জমি কেউ কেড়ে নিয়েছে, নির্যাতন করা হয়েছে, কোনো ধর্মীয় কর্মকান্ড পালনে বাধা দেওয়া হয়েছে, এরকম কোনো উদাহরণ নেই। বাংলাদেশ ধমীয় সম্প্রীতির বিশে^র বুকে অনন্য এক দৃষ্টান্তের দেশ।
আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, জঙ্গিবাদ নির্মূল করতে হলে রাজনৈতিক সদিচ্ছার পাশাপাশি জনসচেতনতা তৈরি করতে হবে।
হলি আর্টিজানের ঘটনায় পুরো জাতি লজ্জিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, ধর্মের খন্ডিত ব্যাখা দিয়ে যাতে দেশে কেউ আর এ ধরনের ঘটনা না ঘটাতে পারে সে বিষয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী যথাযথ দায়িত্ব পালন করছে। বাংলা ভাইকে শক্ত হাতে দমন করা গেলে, দশ ট্রাক অস্ত্রের চালান বন্ধ করতে পারলে এবং ৬৩টি জেলায় একযোগে বোমা হামলার ঘটনা প্রতিহত করা গেলে হোলি আর্টিজানের মতো ঘটনা ঘটতো না।
প্রতিযোগিতায় দারুননাজাত সিদ্দিকীয়া কামিল মাদরাসাকে হারিয়ে ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ এশিয়া এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়, শেরেবাংলা কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. তাজুল ইসলাম চৌধুরী তুহিন।
অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন, সাংবাদিক মাঈনুল আলম, সাজেদা পারভীন সাজু, নাদিয়া শারমিন, জিয়া খান ও জাহিদ রহমান। প্রতিযোগিতা শেষে চ্যাম্পিয়ন ও রানার আপ দলকে ট্রফি, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

image_printPrint