গাজীপুরে সুষ্ঠু নির্বাচনে ইসির ব্যাপক প্রস্তুতি

82
image_printPrint

গাজীপুর, ১৯ জুন ২০১৮ (বাসস) : আগামী ২৬ জুন গাজীপুরে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে ব্যাপক প্রস্তুতি শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন।
প্রায় দেড়মাস পর গত ১৮ জুন থেকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচার-প্রচারণা শুরু হয়েছে।
গাজীপুর জেলা শহরের শহীদ বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় স্থাপন করা হয়েছে।
নির্বাচনের সার্বিক ব্যবস্থাপনা, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি এবং প্রতিদ্বন্দ্বী সকল প্রার্থীর সঙ্গে বৈঠক করতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, সকল কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনের সচিব বুধবার সকালে গাজীপুরে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি বিষয়ে কথা বলবেন। পরে তারা দুপুরে বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামে মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় মিলিত হবেন বলে গাজীপুরের নেজারত ডেপুটি কালেক্টরেট (এনডিসি) খুদরত-ই-খুদা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
নির্বাচনে মেয়র পদে সাতজন এবং ৫৭টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৫৪ জন, ১৯টি সংরক্ষিত আসনে ৮৪ জন নারী কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এতে ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন।
আগামী ২১ ও ২২ জুন গাজীপুর সিটি নির্বাচনের প্রায় ৯ হাজার ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা এবং ২৪ জুন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ৫০৩ জন কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।
গাজীপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও নির্বাচনে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. তারিফুজ্জামান জানান, ইতিমধ্যে প্রশিক্ষণার্থীদের কাছে চিঠি পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। ৪২৫টি ভোট কেন্দ্রে ৪২৫ জন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা (এর ৫ শতাংশ রিজার্ভ), ২ হাজার ৭৬১টি ভোট কক্ষের জন্য ২ হাজার ৭৬১ জন সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা (এর ৫ শতাংশ রিজার্ভ), প্রতিটি ভোট কক্ষে দুজন করে মোট ৫ হাজার ৫২২ জন পোলিং অফিসারসহ (এর ৫ শতাংশ রিজার্ভ) প্রায় ৯ হাজার ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।
তিনি জানান, গাজীপুর সিটি নির্বাচনে ছয়টি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করার জন্য নির্বাচন কমিশনে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।
এ ছাড়া গাজীপুর সরকারি মহিলা কলেজ কেন্দ্র, কানাইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র এবং টঙ্গীর আউচপাড়া এলাকার বসির উদ্দিন উদয়ন একাডেমি কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে বলেও জানান তিনি।